spot_img
26 C
Dhaka

২৬শে নভেম্বর, ২০২২ইং, ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯বাংলা

সর্বশেষ
***বিজয়ের মাসে ২টি প্রদর্শনী নিয়ে আসছে বাতিঘরের নাটক ‘ঊর্ণাজাল’***মহিলা আওয়ামী লীগের নতুন সভাপতি চুমকি, সাঃ সম্পাদক শবনম***সরকার নারীদের উন্নয়নে কাজ করে চলেছে : মহিলা আ. লীগের সম্মেলনে শেখ হাসিনা***তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া কোনো নির্বাচন হতে দেয়া হবে না : কুমিল্লায় মির্জা ফখরুল***দেশে আর ইভিএমে ভোট হতে দেওয়া হবে না : রুমিন ফারহানা***রংপুর সিটি নির্বাচনে অপ্রীতিকর কিছু ঘটলে ভোটগ্রহণ বন্ধ করে দেয়া হবে : নির্বাচন কমিশনার***সৌদি আরবে চলচ্চিত্র উৎসবে সম্মাননা পাচ্ছেন শাহরুখ খান***ভূমি অফিসে সরাসরি ঘুস গ্রহণের ভিডিও ভাইরাল***আজ মাঠে নামলেই ম্যারাডোনার যে রেকর্ড ছুঁয়ে ফেলবেন মেসি***স্বাধীনতা কাপের সেমিফাইনালে শেখ রাসেল

হালকা কুসুম গরম পানি পান করলে যেসব উপকার পাবেন

- Advertisement -

লাইফস্টাইল ডেস্ক, সুখবর বাংলা: মানব দেহের প্রায় ৭৫ শতাংশ হলো পানি। দেহের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ থেকে শুরু করে শারীরবৃত্তীয় সকল কাজে পানির প্রয়োজন হয়। পানি শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করতে সাহায্য করে। আর তাই প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করা উচিত।

তবে ঠান্ডা পানি পান করার চাইতে কুসুম গরম পানি খাওয়ার উপকারিতা অনেক বেশি। আজ আমরা জানবো হালকা কুসুম গরম পানি পানের কিছু উপকারিতা সম্বন্ধে-

>> হজম শক্তি বৃদ্ধি করে-

খাবার ঠিকমত হজম না হলে পেট ব্যথা, ডায়রিয়া, বমি বমি ভাব, পেট ফাঁপা ইত্যাদি সমস্যা দেখা দেয়। হজমের সমস্যা হলে শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে। তাই সুস্থ থাকার জন্য হজম শক্তি ঠিক রাখা জরুরী। খাদ্য গ্রহণের পর ঠাণ্ডা পানি পান করলে খাদ্যের সাথে থাকা চর্বিগুলো জমে যায়। এতে পাকস্থলীতে চর্বির স্তর জমতে থাকে যা পরবর্তীতে ক্যান্সারে রূপান্তরিত হতে পারে।

কিন্তু গরম পানি পান করলে চর্বি ভেঙ্গে যায়, ফলে সহজেই চর্বি হজম বা নিঃসরণ হয়। গরম পানির ভ্যাসোডাইলেটর ফ্যাক্টর রয়েছে। অর্থাৎ গরম পানি রক্তনালীকে প্রশস্ত করে এবং রক্ত প্রবাহকে অন্ত্রের দিকে অগ্রসর করে যা পরিপাক প্রক্রিয়ায় সহায়তা করে থাকে।

>> কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে-

কোষ্ঠকাঠিন্য অনেক যন্ত্রণাদায়ক একটি সমস্যা। যদি সপ্তাহে তিনবারের কম পায়খানা হয় অথবা মলত্যাগ করতে গেলে ভীষণ কষ্ট লাগে তাহলে তাকে কোষ্ঠকাঠিন্য বলা হয়। গরম পানি পান করলে পাকস্থলীর কার্যক্ষমতা তথা হজমশক্তি বৃদ্ধি পায়।‌ এছাড়াও গরম পানি অন্ত্র (Intestine) এর গতি ভালো রাখে যা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সহায়তা করে। প্রতিদিন খালিপেটে কুসুম গরম পানি পান করলে এটি পায়খানার বেগ পেতে সাহায্য করে, যার ফলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়ে যায়।

>> বন্ধ নাক খুলতে সহায়তা করে-

শীতকালে অনেকেরই সর্দি কাশি লেগেই থাকে। শীতকালের সবচেয়ে যন্ত্রণাদায়ক সমস্যা হলো ঠাণ্ডা লেগে নাক বন্ধ হয়ে যাওয়া। গরম পানি শ্বাসনালীর সংক্রমণ দূর করতে সহায়তা করে। ঠান্ডা পানির চেয়ে গরম পানি পান করলে নাক বন্ধ হওয়ার সমস্যা থেকে দ্রুত মুক্তি পাওয়া যায়, কারণ উচ্চ তাপমাত্রা মিউকাস চলাচলের গতিকে বৃদ্ধি করে। গরম পানির ভাপ নেওয়ার মাধ্যমে নাক বন্ধ হয়ে যাওয়া সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

>> শরীরের ব্যথা দূর করতে সাহায্য করে-

গরম পানি পান করলে শরীরে রক্ত প্রবাহ বেড়ে যায়। যার ফলে পেশি শিথিল হয় এবং ব্যথা কমে যায়। গরম পানি শরীরের প্রায় সকল প্রকার ব্যথা দূর করতে সাহায্য করে। বাহ্যিকভাবে ব্যথার স্থানে গরম পানি বোতলে ভরে সেঁক দিলে উপকার পাওয়া যায়। এছাড়াও গলা ব্যথা দূর করতে গরম পানিতে অল্প পরিমাণে লবণ মিশিয়ে গড়গড়া করা বহুল প্রচলিত একটি পদ্ধতি।

>> মহিলাদের মাসিকের ব্যাথা দূর করে-

অনেক মেয়েরই অনিয়মিত পিরিয়ডের সমস্যা আছে। আবার অধিকাংশ মেয়েদের মাসিকের সময় প্রচণ্ড ব্যাথা হয়ে থাকে, যা সহ্য করা অনেক কষ্টকর হয়ে পড়ে।

গরম পানি পান করলে পিরিয়ডের ব্যথা অনেকটাই কমে যায়। এছাড়াও গরম পানি প্লাস্টিকের বোতলে ভরে তলপেটে সেঁক দিলে মাসিকের ব্লিডিং ভালো ভাবে হয় এবং তুলনামূলক ব্যথার মাত্রা কম থাকে।‌

>> শরীরের বর্জ্য বের করে দেয়-

ঘামের সঙ্গে সঙ্গে শরীরের বর্জ্য পদার্থ বাইরে বেরিয়ে আসে। গরম পানি পান করলে শরীরের তাপমাত্রা বাড়ে, ফলে আরো বেশি ঘাম হয় এবং এভাবে শরীর থেকে দূষিত পদার্থ বের হয়ে যায়।

>> ওজন হ্রাস করে দুর্দান্ত উপায়ে-

শরীরের অতিরিক্ত ওজন দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায় কারণ তা বিভিন্ন ধরনের জটিল রোগের ঝুঁকি বাড়ায়। সুস্বাস্থ্যের জন্য তো বটেই, শারীরিক সৌন্দর্যের জন্যও নারী-পুরুষ উভয়েরই শরীরের ওজন ঠিক রাখা প্রয়োজন। গরম পানি পান করলে ওজন কমে না, কিন্তু তা ওজন কমানোর প্রক্রিয়াকে সাহায্য করে।

গরম পানি পান করলে বিপাক প্রক্রিয়া ভাল হয়। প্রতিদিন সকালে খালিপেটে গরম পানি ও লেবু খাওয়ার অভ্যাস করুন। যা শরীরকে কর্মক্ষম রাখতে সাহায্য করবে এবং শরীর থেকে ক্ষতিকর পদার্থ বের করে দেবে। সেই সাথে ক্ষুধা বোধ কমানোর মাধ্যমে ওজন কমাতে সহায়তা করবে।

>> রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখে-

গরম পানি পান করলে তা শরীরের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করে। ফলে পেশী ও স্নায়ু সঠিকভাবে কাজ করতে পারে। পেশির সঞ্চালন ও স্নায়ুর সঠিক কর্মকাণ্ডের জন্য গরম পানি পান করা অতীব প্রয়োজন। এছাড়াও কুসুম গরম পানিতে গোসলের মাধ্যমে শরীরের রক্ত সঞ্চালন প্রক্রিয়া এবং স্নায়ুতন্ত্রের কার্যক্রম ভালো থাকে।

>> ঘুমের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে-

ঘুম না হওয়ার সমস্যাটি খুব কমন ১টি ব্যাপার। ঘুমের ব্যাঘাত হলে মন এবং শরীরের উপর প্রভাব পড়ে, ফলে কোনো কাজই ঠিকভাবে করা হয় না। ঘুমাতে যাওয়ার পূর্বে গরম পানি পান করলে প্রশান্তি পাওয়া যায়, যা দ্রুত ঘুমিয়ে যেতে সহায়তা করে এবং পেট ভরা আছে এমন অনুভূতি দেয় যা মধ্যরাতে ক্ষুধা জাগ্রত করে না। এছাড়াও সারাদিনের ক্লান্তি দূর করতে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে হালকা গরম পানিতে গোসল করে নেওয়ার মাধ্যমে বেশ উপকার পাওয়া যায়।

>> অকালে বয়সের ছাপ দূর করবে-

বয়স বাড়ার সাথে সাথে আমাদের ত্বকে বয়সের ছাপ পড়ে যায় এবং ত্বকে নানান সমস্যা দেখা দেয়। ফলে চামড়া কুঁচকে যায়, ভাজ পড়ে বা ঝুলে যায় যা বলিরেখা বা বয়সের ছাপ হিসেবে পরিচিত। গরম পানি পান করলে শরীরের তাপমাত্রা বাড়তে শুরু করে। ফলে ঘাম বেশী হয়। ঘামের সাথেই শরীরের অনেক ধরনের বর্জ্য বের হয়ে যায়। এতে ত্বক ভালো থাকে।

শরীরের বর্জ্য বের না হলে ত্বকের কোষ নষ্ট হয়ে যায়। ফলে অকালে বয়সের ছাপ পড়ে। গরম পানি এই নষ্ট কোষগুলোকে ঠিক করে ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা বাড়ায়। ফলে ত্বক কোমল হয় এবং বয়সের ছাপ দূর হয়।

>> গরম পানি দিয়ে মুখ ধোয়া-

গরম পানি দিয়ে মুখ ধোয়ার মাধ্যমে ময়লা ও মৃত কোষ দূর হয়।‌ এছাড়াও মুখের অতিরিক্ত তেল ভাব ও ব্রণ হওয়ার প্রবণতা কমে যায়। তবে খেয়াল রাখতে হবে যেন, পানি একদম কুসুম কুসুম গরম প্রকৃতির হয়। শরীরের অন্যান্য অংশের তুলনায় মুখের ত্বক বেশি কোমল। আর তাই অতিরিক্ত গরম পানি দিলে তা ত্বকের জন্য ক্ষতির কারণ হতে পারে।‌

এম এইচ/

আরো পড়ুন:

যে তেল ব্যবহারে দূর হবে আঁচিল

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ