spot_img
26 C
Dhaka

১লা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ইং, ১৮ই মাঘ, ১৪২৯বাংলা

স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সব প্রস্তুতি থাকতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

- Advertisement -

নিজস্ব প্রতিবেদক, সুখবর ডটকম: আমরা কারো সঙ্গে যুদ্ধ করব না; সবার সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রেখেই চলব। তবে স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি থাকতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (২২ ডিসেম্বর) সকালে চট্টগ্রামের বাংলাদেশ নেভাল একাডেমিতে শীতকালীন রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে তিনি বক্তব্য দেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা জাতির পিতার নেতৃত্বে একটি স্বাধীন দেশ পেয়েছি, একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের ভার নিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। মাত্র সাড়ে ৩ বছরের মধ্যে এই বাংলাদেশকে যুদ্ধবিধ্বস্ত ধ্বংসস্তূপ থেকে উন্নত করে স্বল্পোন্নত দেশ হিসেবে গড়ে তোলেন তিনি। বাংলাদেশের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নের পথে যখনই অগ্রযাত্রা শুরু হয় তখনই ১৯৭৫ সালে ১৫ আগস্টে, যিনি বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ছিলেন, তাকে তার পরিবারসহ নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের পররাষ্ট্রনীতি অত্যন্ত স্পষ্ট। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব যে পররাষ্ট্রনীতি আমাদের দিয়ে গেছেন—সকলের সাথে বন্ধুত্ব, কারো সাথে বৈরিতা নয়। তবে স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি থাকতে হবে।

সরকারপ্রধান আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন বাংলাদেশের যে ভৌগোলিক অবস্থান, ভূরাজনৈতিক এবং সমুদ্রসীমা সম্পদের যে অধিকার, সেই অধিকার সংরক্ষণ করা। এ দেশটিকে ক্ষুধা দারিদ্র্যমুক্ত সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তোলা। সেভাবেই বর্তমান সরকার কাজ করে চলেছে।

তিনি বলেন, যদি কখনো বহিঃশত্রুর আক্রমণ হয়, সেটা যেন আমরা প্রতিহত করতে পারি, আর যে কোনও যুদ্ধে যেন জয়ী হতে পারি, সেভাবেই সশস্ত্র বাহিনীকে আধুনিক প্রযুক্তি জ্ঞানসম্পন্ন ও আধুনিক সরঞ্জামাদি দিয়ে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই।

শেখ হাসিনা বলেন, এ জন্য প্রশিক্ষণকে সব থেকে বেশি গুরুত্ব দেই এবং প্রশিক্ষণের জন্য অবকাঠামো আমরা আওয়ামী লীগ সরকারে এসে করে দিয়েছি।

তিনি বলেন, এই বাংলাদেশকে আমরা এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই, ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশ হিসেবে আমরা প্রতিষ্ঠা করবো। ‘৪১ সালে বাংলাদেশের জনগণ হবে প্রযুক্তি জ্ঞান সম্পন্ন। ডিজিটাল ডিভাইসে শিক্ষা নিয়ে তারা প্রত্যেকে প্রযুক্তিজ্ঞান সম্পন্ন নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের অর্থনীতি, যে কোনো পরিকল্পনা বাস্তবায়ন, সব কিছু আমরা ডিজিটাল পদ্ধতিতে নিয়ে যাব। বাংলাদেশ হবে স্মার্ট উন্নত বাংলাদেশ। যে বাংলাদেশ জাতির পিতা চেয়েছিলেন; ক্ষুধা, দারিদ্র্যমুক্ত, উন্নত, সমৃদ্ধ বাংলাদেশ।

নৌবাহিনীর মিডশিপম্যান ২০২২/এ এবং ডাইরেক্ট এন্ট্রি অফিসার (ডিইও) ২০২২/বি ব্যাচের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে সকালে হেলিকপ্টারে করে চট্টগ্রামের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এম/ আই.কে.জে/

আরো পড়ুন:

দলকে চাঙা করতে নতুন নেতৃত্ব আসবে: ওবায়দুল কাদের

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ