spot_img
21 C
Dhaka

৯ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ইং, ২৬শে মাঘ, ১৪২৯বাংলা

স্প্যানিশ সুপার কাপে রিয়ালকে ৩: ১ গোলে বিধ্বস্ত করে বার্সার শিরোপা জয়

- Advertisement -

স্পোর্টস ডেস্ক, সুখবর ডটকম: মাদ্রিদ জায়ান্ট রিয়ালকে রীতিমতো উড়িয়ে দিয়ে স্প্যানিশ সুপার কাপ নিজেদের ঘরে তুলেছে কাতালান জায়ান্ট বার্সেলোনা। রিয়াল মাদ্রিদ নিজেদের খুঁজে পাওয়ার লড়াই করতে করতেই কাজের কাজটা করে ফেলেছে জাভির বার্সা। আধিপত্য ধরে রেখে ৩-১ গোলে রিয়াল মাদ্রিককে হারিয়ে স্প্যানিশ সুপার কাপ ঘরে তোলে বার্সেলোনা। বছরের প্রথম এল ক্লাসিকো জিতে প্রতিযোগিতার ১৪তম শিরোপাও নিশ্চিত করেছে বার্সেলোনা।

শিরোপা নির্ধারণী মঞ্চে চেনা ছন্দে পাওয়া যায়নি রিয়ালকে। কার্লো আনচেলত্তির শিষ্যরা ছিল নিজেদের ছায়া হয়ে। তাদের মলিন পারফরম্যান্সের বিপরীতে দ্যুতি ছড়ায় বার্সা। বল দখলের পাশাপাশি গোলের সুযোগ তৈরিতে আধিপত্য করে কাতালানরা।

মরুর বুকে ম্যাচের শুরুতে ছিল লড়াইয়ের আভাস। বলের দখলে রিয়াল এগিয়ে থাকলেও, আক্রমণে দাপট দেখাচ্ছিল বার্সা। ম্যাচের ১৩ মিনিটে অল্পের জন্য গোলের সুযোগ হাতছাড়া করে জাভি হার্নান্দেজের দল। ডি-বক্সের সামান্য বাইরে থেকে নেওয়া রবার্ট লেভানডফস্কির দুর্দান্ত এক শট রিয়াল গোলরক্ষক থিবো কোর্তোয়ার হাতে লেগে পোস্টে প্রতিহত হয়ে ফিরে আসে। এরপর আলেসান্দ্রো বালদের ফিরতি শট পোস্টের বাইরে দিয়ে যায়।

১৯ মিনিটে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ এসেছিল রিয়ালের সামনে। তবে করিম বেনজেমার  হেড অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। বার্সা এ সময় ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ রেখে আক্রমণে যাওয়ার চেষ্টা করলেও, রিয়ালের চোখ ছিল পাল্টা আক্রমণে। গোলের জন্য দুই দলের মরিয়া প্রচেষ্টা ম্যাচের উত্তেজনাও বেশ বাড়িয়ে দিয়েছিল।

তবে ধারাবাহিক আক্রমণের মুখে ম্যাচের ৩৩ মিনিটে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। রিয়াল ডিফেন্সের ভুলে বল পেয়ে লেভানডফস্কি পাস বাড়ান গাভির উদ্দেশ্যে। বল পেয়ে ভুল করনেনি এই তরুণ তুর্কি। নিঁখুত ফিনিশিংয়ে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন গাভি।

শুরুতে গোল খেয়ে জেগে ওঠার চেষ্টা করে রিয়াল। একাধিকবার বার্সা ডিফেন্সে হানাও দেয়, তবে কাঙ্ক্ষিত গোলটি পাওয়া হচ্ছিল না। উল্টো বিরতির আগ মুহূর্তে আবারও দেখা মেলে সেই গাভি-লেভা জাদুর। এবার অবশ্য গাভির সহায়তায় গোল করেন লেভা। তবে এই গোলে অসাধারণ একটি পাস ছিল ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ংয়ের। অবশ্য এবারও প্রথম গোলের মতো দায় ছিল রিয়ালের ডিফেন্সিভ ভুলের। প্রথমার্ধেই ম্যাচ থেকে একরকম ছিটকে যায় রিয়াল।

বিরতির পর এদোয়ার্দো কামাভিঙ্গাকে তুলে নিয়ে রদ্রিগোকে নামান রিয়াল কোচ কার্লো আনচেলত্তি। তবে ৫১ মিনিটে তৃতীয় গোলটি করে ম্যাচটা সেখানেই শেষ করে দিতে পারত বার্সা। রিয়াল গোলরক্ষক কোর্তোয়ার দুর্দান্ত সেইভের কারণে সে যাত্রায় গোল বঞ্চিত হন উসমান দেম্বেলে।

৫৪ মিনিটে ফের লেভাকে নিরাশ করেন কোর্তোয়া। এ সময় গোল দূরে থাক, সেভাবে সম্ভাবনাও তৈরি করতে পারছিল না রিয়াল। উল্টো নিজেরাই বারবার হুমকির মুখে পড়ছিল। সেই হুমকিতেই ম্যাচের ৬৯ মিনিটে ধসে পড়ে রিয়াল ডিফেন্স। এবারও রিয়ালের রক্ষণভাগের ভুল ছিল চোখে পড়ার মতো।

৭০ মিনিট পেরোনোর আগেই শেষ হয়ে যায় রিয়ালের শিরোপা ধরে রাখার সম্ভাবনা। এরপর চেষ্টা করেও আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি ‘লস ব্লাঙ্কোস’ শিবির। রিয়ালের দারুণ কিছু আক্রমণ ঠেকিয়েছেন বার্সেলোনার গোলরক্ষক টার স্টেগেন। শেষ দিকে বেনজেমা একটি গোল শোধ করলেও সেটি ছিল শুধুই সান্ত্বনা।

এম/

আরো পড়ুন:

টিভিতে দেখুন আজকের খেলা (১৬ জানুয়ারি ২০২৩)

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ