spot_img
25 C
Dhaka

২৭শে নভেম্বর, ২০২২ইং, ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯বাংলা

সর্বশেষ

সোনার দাম ১৮ ডলার কমলো একদিনে

- Advertisement -

নিজস্ব প্রতিবেদক, সুখবর বাংলা: গত কয়েক মাসে কয়েক দফা সোনার দাম ওঠা-নামা করে, এমনকি বিশ্ববাজারে গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে সোনার দামে বড় দরপতন হয়েছে। একদিনেই প্রতি আউন্স সোনার দাম ১৮ ডলারের বেশি কমেছে।

বিশ্ববাজারে সোনার লেনদেনের তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, গত সপ্তাহের শুরুতে দরপতনের মধ্যে পড়ে সোনা। সপ্তাহের শুরুতে প্রতি আউন্স সোনার দাম ছিল ১ হাজার ৬৬০ ডলার। সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসেই সেখান থেকে কমে ১ হাজার ৬৪৫ ডলারে নেমে যায়। দ্বিতীয় কার্যদিবসের লেনদেনের এক পর্যায়ে তা আরও কমে ১ হাজার ৬৩৯ ডলারে নেমে যায়।

বিশ্ববাজারে সোনার এমন দরপতনের মধ্যে ২৫ অক্টোবার থেকে দেশের বাজারেও সোনার দাম কমানো হয়। মান অনুযায়ী প্রতি আউন্স সোনার দাম ৮১৭ টাকা থেকে ১ হাজার ১৬৬ টাকা পর্যন্ত কমায় বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)।

বাজুসের মূল্য নির্ধারণ ও মূল্য পর্যবেক্ষণ সংক্রান্ত স্থায়ী কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, সব থেকে ভালো মানের বা ২২ ক্যারেট প্রতি ভরি (১১.৬৬৪ গ্রাম) সোনার দাম ১ হাজার ১৬৬ টাকা কমিয়ে ৮০ হাজার ১৩২ টাকা করা হয়েছে।

এছাড়া ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি সোনার দাম ১ হাজার ১০৮ টাকা কমিয়ে ৭৬ হাজার ৫১৬ টাকা, ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরি সোনার দাম ৯৩৩ টাকা কমিয়ে ৬৫ হাজার ৫৫২ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরি সোনার দাম ৮১৭ টাকা কমিয়ে ৫৪ হাজার ৩৫৪ টাকা করা হয়েছে।

দেশের বাজারে সোনার দাম বাড়ানোর পর পরই বিশ্ববাজারে হঠাৎ সোনার দামে বড় উত্থান হয়। সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসে প্রতি আউন্স সোনার দাম ১ হাজার ৬৭২ ডলার পর্যন্ত উঠে। তবে চতুর্থ ও পঞ্চম বা শেষ কর্যদিবসে আবার পতনের মধ্যে পড়ে সোনা।

এর মধ্যে সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস সব থেকে বড় দরপতন হয়। এদিন প্রতি আউন্স সোনার দাম ১৮ দশমিক ৮৬ ডলার বা ১ দশমিক ১৩ শতাংশ কমেছে। এতে প্রতি আউন্স সোনার দাম কমে ১ হাজার ৬৪৪ ডলারে নেমেছে। এই দরপতনের ফলে সপ্তাহের ব্যবধানে বিশ্ববাজারে সোনার দাম কমেছে দশমিক ৭৬ ডলার। আর মাসের ব্যবধানে কমেছে দশমিক ৯৮ শতাংশ।

এদিকে সোনার পাশাপাশি গত সপ্তাহে বিশ্ববাজারে রুপা ও প্লাটিনামের দামেও পতন হয়েছে। গত এক সপ্তাহে রুপার দাম দশমিক ৮৬ শতাংশ কমে প্রতি আউন্স ১৯ দশমিক ২৩ ডলারে নেমে এসেছে। আর প্লাটিনামের দাম ১ দশমিক ৩৫ শতাংশ কমে ৯৪৪ দশমিক ৬৩ ডলারে দাঁড়িয়েছে।

তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, গত ফেব্রুয়ারিতে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ বাঁধলে বিশ্ববাজারে হু হু করে বাড়ে সোনার দাম। মার্চের প্রথমার্ধেই প্রতি আউন্স সোনার দাম দুই হাজার ডলার ছাড়িয়ে যায়। এরপর গত কয়েক মাসে কয়েক দফা সোনার দাম ওঠা-নামা করে। তবে আগস্টের মাঝামাঝি থেকে পতনের মধ্যে পড়ে সোনা। আর সেপ্টেম্বরের বেশিরভাগ সময়জুড়ে সোনার দরপতন হলেও, শেষদিকে এসে দাম কিছুটা বাড়ে।

গত ১২ আগস্ট প্রতি আউন্স সোনার দাম ছিল ১ হাজার ৮০১ দশমিক ৮২ ডলার। সেখান থেকে কমতে কমতে সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে প্রতি আউন্স সোনার দাম দুই বছর পর সাড়ে ১৬’শ ডলারের নিচে নেমে যায়। এরপর সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে এবং অক্টোরের শুরুর দিকে সোনার দাম কিছুটা বেড়ে প্রায় ১৭’শ ডলার হয়ে যায়। এখন তা আবার কমে সাড়ে ১৬’শ ডলারের নিচে নেমেছে।

এসি/

আরো পড়ুন:

ইলিশের উৎপাদন বাড়াতে সরকার নতুন যেসব পদক্ষেপ নিচ্ছে

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ