spot_img
27 C
Dhaka

২৯শে নভেম্বর, ২০২২ইং, ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯বাংলা

লিঙ্গ বৈষম্যের আরেক দৃষ্টান্ত : পাকিস্তানের গার্লস ডিগ্রি কলেজে দুর্নীতি

- Advertisement -

ডেস্ক রিপোর্ট, সুখবর বাংলা: পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশের দক্ষিণ ওয়াজিরিস্তান জেলায় অবস্থিত ওয়ানার গার্লস ডিগ্রি কলেজ, সামরিক কর্মকর্তা ও উপজাতীয় নেতাদের সহযোগিতায় গত দুই বছর আগে উদ্বোধন করা হয়।

তবে এ কলেজের শিক্ষকেরা যথাযথভাবে তাদের নিজেদের দায়িত্ব পালন করছেন না। শিক্ষার্থীদের না পড়িয়েই তারা মাসে মাসে বেতন ভোগ করছেন। এতে করে উক্ত কলেজের ছাত্রীদের ভবিষ্যৎ হুমকির মুখে পড়েছে।

পাকিস্তানের নিজস্ব সংবাদদাতাদের মতে, কলেজের শিক্ষকেরা কলেজে অনুপস্থিত থেকেই মাসে মাসে বেতন উপভোগ করায় দেশের জাতীয় কোষাগার প্রায় ৪ লক্ষ টাকার ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে।

পুরুষতান্ত্রিক সমাজ এবং পুরাতন ধ্যান ধারণায় চলা পাকিস্তানে মেয়েদের পড়াশুনা চালানোটাই কঠিন এক কাজ। এখানকার লিঙ্গ বৈষম্যের খারাপ প্রভাব পড়ে মেয়েদেরই উপর।

মানসম্মত শিক্ষা প্রদানের দিক থেকে পাকিস্তান এশিয়ার সর্বনিকৃষ্ট দেশের তালিকায় রয়েছে। ২০১৭ সালের এক পরিসংখ্যানে দেখা যায়, লিঙ্গ বৈষম্যের ঘটনায় এ দেশ দ্বিতীয় নিকৃষ্ট দেশ হিসেবে পরিগণিত হয়েছিল।

এদেশে মেয়েদের শিক্ষা অর্জনের ক্ষেত্রে রয়েছে নানা প্রতিবন্ধকতা। ২০১০ সালের ইউএনডিপি রিপোর্ট অনুযায়ী, লিঙ্গ ক্ষমতায়নের তালিকায় ৯৪ টি দেশের মধ্যে পাকিস্তানের অবস্থান ৯২ এবং লিঙ্গ সম্পর্কিত উন্নয়ন সূচকে ১৪৬টি দেশের মধ্যে এর স্থান ১২০ -এ।

পাকিস্তানি সমাজে পিতৃতান্ত্রিক চিন্তাচেতনা বদ্ধমূল এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রেই তার প্রকাশ ফুটে উঠে। এখানকার পুরুষেরা বেতনভুক্ত কর্মচারী, পরিবারের জন্য উপার্জনকারী এবং নারীদেরকে ঘরের গৃহস্থালি কাজকর্মের মাঝে থাকতে বাধ্য করা হয়। এই কারণে পরিবার এবং রাষ্ট্র উভয়েই নারীশিক্ষার জন্য বিনিয়োগ করতে চায় না।

২০১২ সালের সেপ্টেম্বর মাসে, সন্ত্রাসীরা সোয়াতের ৪০১ টি স্কুল ধ্বংস করে দেয় এবং খাইবার পাখতুনখোয়ার ৭১০ টি স্কুল ধ্বংস করে। সোয়াত জেলার মিঙ্গোরাতে মেয়েদের স্কুলগুলো ধ্বংসের প্রতিবাদ করলে ২০১২ সালের ৯ অক্টোবর, তালেবান জঙ্গীদের হামলার শিকার হন ১৬ বছর বয়সী মালালা ইউসুফজাই। জঙ্গীরা তার মাথায় এবং ঘাড়ে গুলি করে।

আন্তর্জাতিক সংগঠন এসডিজিফোর এর মাধ্যমে শিক্ষাক্ষেত্রে লিঙ্গ বৈষম্যের অবসান ঘটানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। লিঙ্গ সমতার পক্ষের সমর্থকেরা দাবি করেন, লিঙ্গ বৈষম্যহীন শিক্ষার পরিবেশ শুধুমাত্র নৈতিক কাজ নয় বরং একটি দেশের সার্বিক উন্নয়নের জন্যেও প্রয়োজনীয়।

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ