spot_img
20 C
Dhaka

২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ইং, ১৩ই মাঘ, ১৪২৯বাংলা

রাতে কেন তাড়াতাড়ি বিছানায় যেতে চান কিয়ারা আদবানি?

- Advertisement -

বিনোদন ডেস্ক, সুখবর ডটকম: বলিউডে প্রথম সারির অভিনেত্রীদের সঙ্গে ইতিমধ্যেই সমানে সমানে টক্কর চালাচ্ছেন কিয়ারা আদবানি। অভিনয় দক্ষতা, স্টাইল স্টেটমেন্ট দিয়ে নেটিজেনদের মন জয় করে নিয়েছেন কিয়ারা আদবানি। এবার কপিলের শো-তে হাজির হতেই গোপন কীর্তি ফাঁস হল কিয়ারার।

গ্ল্যামার হোক ফিগার, কিংবা ফ্যাশন স্টেটমেন্টে সর্বদাই ঝড় তুলছেন কিয়ারা আদবানি।

রাতে দশটা বাজলেই ঘুমোতে যেতেই হবে কিয়ারাকে। কী কারণে এই তাড়া, কপিলের প্রশ্নে কিসের ইঙ্গিত?

গোটা বছরটা জুড়েই চর্চায় ছিলেন কিয়ারা আদবাণী। একের পর এক ছবি মুক্তি পেয়েছে সারা বছর ধরে। বছর শেষে মুক্তি পেল ‘গোবিন্দ নাম মেরা’। সেই ছবির প্রচারে কপিল শর্মা শো-তে আসেন তিনি। সঙ্গে ছিলেন সহ-অভিনেতা ভিকি কৌশল।

যদিও ভূমি পেড়নেকরের দেখা মেলেনি। ‘কবীর সিংহ’ ছবির সময় থেকে ছবির প্রচারে কপিলের শো-তে আসছেন তিনি। সেখানেই কিয়ারার রাতে তাড়াতাড়ি ঘুমোতে যাওয়ার অভ্যাস নিয়ে বেজায় রসিকতা করলেন কপিল। জানতে চাইলেন, কিসের এত তাড়া রাতে ঘুমোতে যাওয়ার!

নিয়মে বাঁধা কিয়ারার জীবন। সেটার নড়চড় একেবারেই পছন্দ নয় অভিনেত্রীর। রাতের কোনও ফিল্মি পার্টি যে কারণে এড়িয়ে যান তিনি। ১০টা বাজলেই যে বিছানায় যেতে হবে তাঁকে। নিয়মের এ দিক-ও দিক করেন না যে।

ভাল ত্বকের জন্য ঘুমটা যে দরকারি। কিয়ারার এ কথা শুনেই কপিল তাঁকে পাল্টা প্রশ্ন করে বসেন, ‘‘সকালে উঠে কি আপনাকে অক্ষয় কুমারকে ঘুম থেকে তুলতে যেতে হয়?’’ কপিলের এমন কথা শুনে হেসে কুটিপাটি কিয়ারাও।

গত শুক্রবারই ডিজ়নি প্লাস হটস্টারে মুক্তি পেয়েছে ‘গোবিন্দ নাম মেরা’। এখানে ভিকি কৌশলকে দেখা গিয়েছে গোবিন্দর চরিত্রে।

অন্য দিকে, কিয়ারাকে দেখা যাচ্ছে ভিকির প্রেমিকার চরিত্রে, স্ত্রীর চরিত্রে রয়েছেন ভূমি। মায়ানগরীতে কান পাতলেই শোনা যাচ্ছে ২০২৩ সালে সিদ্ধার্থ মলহোত্রর সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসতে চলেছেন অভিনেত্রী।

এসি/ আই. কে. জে/

আরো পড়ুন:

সর্বকালের বিশ্বসেরা ৫০ অভিনেতার তালিকায় শাহরুখ

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ