spot_img
31 C
Dhaka
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img

১লা অক্টোবর, ২০২২ইং, ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯বাংলা

যুক্তরাজ্যে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনে ভোট শেষ, জয়ের সম্ভাবনা ট্রাসের

- Advertisement -

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, সুখবর বাংলা: যুক্তরাজ্যে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির নেতা নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। আগামী সপ্তাহে ফলাফল প্রকাশ করা হবে বলে আশা করা যাচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, লিজ ট্রাস নির্বাচনে জয়ী হবেন। পরে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বরিস জনসনের স্থলাভিষিক্ত হবেন।

আজ শনিবার কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গত ৪ আগস্ট প্রথম ভোটগ্রহণ শুরু হয় এবং গতকাল শুক্রবার স্থানীয় সময় বিকেল ৫টায় তা শেষ হয়। পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ট্রাস ও সাবেক অর্থমন্ত্রী ঋষি সুনাকের মধ্য থেকে একজনকে বরিস জনসনের উত্তরসূরি হিসেবে বেছে নিতে গত এক মাস ধরে অনলাইন এবং ও ডাকযোগে ভোট দিয়েছেন কনজারভেটিভ পার্টির প্রায় দুই লাখ সদস্য।

একের পর এক বিতর্ক ও নিজ দলে মন্ত্রীদের বিদ্রোহের মুখে গত জুলাইয়ে বরিস জনসন পদত্যাগের ঘোষণা দেন। তবে দলের সদস্যরা নতুন একজন নেতা নির্বাচিত করলেই তিনি পদত্যাগ করবেন বলে জানান। বরিস জনসনের স্থলাভিষিক্ত হতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন ১০ জন। শেষ পর্যন্ত টিকে যান ঋষি সুনাক ও লিজ ট্রাস।

নির্বাচনের আগে টানা দুই মাস এই দুই প্রতিদ্বন্দ্বী দেশব্যাপী নির্বাচনী প্রচার চালিয়েছেন। টেলিভিশন বিতর্কেও অংশ নিয়েছেন তারা।

সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ভোটের ফলাফল ঘোষণা করা হবে। এর এক দিন পরই ব্রিটিশ রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে পদত্যাগপত্র জমা দেবেন জনসন।

এদিকে ভোটগ্রহণ শেষে কনজারভেটিভ পার্টির চেয়ারম্যান অ্যান্ডু স্টিফেনসন ভোটারদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘আমাদের দল একজন নতুন নেতাকে ঘিরে ঐক্যবদ্ধ হতে এবং সামনে যে চ্যালেঞ্জগুলো আছে, তা মোকাবিলা করতে প্রস্তুত আছে।‘

নির্বাচনে ৪৭ বছর বয়সী ট্রাসের জনসমর্থন ছিল চোখে পড়ার মতো। গতকাল ভোটাভুটির শেষে এক বিবৃতিতে লিজ ট্রাস বলেন, ‘আমার একটি দৃঢ় পরিকল্পনা আছে, যা আমাদের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমি যদি প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হই, তাহলে আমাদের দেশের সাফল্য নিশ্চিত করতে আমি আমার সাধ্যমতো সবকিছু করব।‘

লিজ ট্রাস তার নির্বাচনী প্রচারণায় আশ্বাস দিয়েছেন, নির্বাচিত হলে করের হার কমাবেন এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিকে অগ্রাধিকার দিয়ে কাজ করবেন।

যুক্তরাজ্য কয়েক দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ মূল্যস্ফীতি অবস্থার মধ্যে আছে । চলতি বছরের শেষের দিকে দেশটিতে মন্দা দেখা দেওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

গতকাল সুনাক বলেন, ‘সামনে আমাদের অনেক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে। চ্যালেঞ্জ কীভাবে মোকাবিলা করতে হয়, তা আমি জানি। অর্থমন্ত্রী থাকা অবস্থায় সে কাজ আমি করেছি এবং প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আমি আবারও তা করব।‘

৪২ বছর বয়সী ঋষি সুনাক তার প্রতিদ্বন্দ্বী লিজ ট্রাসের পরিকল্পনাকে ‘বেপরোয়া’ বলে উল্লেখ করে বলেন, এ ধরনের পরিকল্পনা মূল্যস্ফীতি বাড়িয়ে দেবে এবং আন্তর্জাতিক বাজার ও ঋণদাতা প্রতিষ্ঠানের কাছে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে।

আরও পড়ুন:

শ্রীলঙ্কায় ফিরছেন গোটাবায়া রাজাপাকসে

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ