spot_img
31 C
Dhaka
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img

৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ইং, ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯বাংলা

ম্যাচ জিতেছে ভারত, মন জিতেছে নাসিম শাহ

- Advertisement -

ক্রীড়া ডেস্ক, সুখবর বাংলা: অবিশ্বাস্য, রোমাঞ্চকর ও শ্বাসরুদ্ধকর এক ম্যাচ জিতল ভারত। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের স্বল্প রানের লক্ষ্যে শুরুতে কোণঠাসা হয়ে থাকলেও শেষ পর্যন্ত হার্দিক পান্ডিয়ার নৈপুণ্যে জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে টিম ইন্ডিয়া।

মরুর বুকে চার-ছক্কার লড়াইয়ে রোহিত শর্মার দল শেষ হাসি হাসলেও, ক্রিকেট প্রেমীদের মন জয় করেছেন পাকিস্তানের অভিষিক্ত বোলার নাসিম শাহ। ব্যাটাদের ব্যর্থতায় দলে স্বল্প পুঁজিতেও ১৯ বছর বয়সী এই বোলারের লড়াকু মানসিকতার ভূয়সী প্রশংসা করছে সবাই।

(রোববার) এশিয়া কাপে দুই দলের প্রথম ম্যাচটি ভারত জিতেছে ৫ উইকেটে। দুবাইয়ের আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে পাকিস্তানে ১৪৮ রানের ছোট লক্ষ্য রোহিত শর্মার দল ছুঁয়ে ফেলে ২ বাকি থাকতে।

গত বছর এই মাঠেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচে ভারতকে ১০ উইকেটে উড়িয়ে দিয়েছিল পাকিস্তান। তারপর এই প্রথমবার মুখোমুখি হয়ে সেই ক্ষতে প্রলেপ দিল টিম ইন্ডিয়া।

এশিয়ান ক্রিকেটের সর্বোচ্চ প্রতিযোগিতায় ভারতের কাছে হারলেও কিছুটা তৃপ্তি নিয়েই মাঠ ছেড়েছে পাক সমর্থকরা। ভারতের বিশাল ব্যাটিং লাইন-আপের মধ্যেও অল্প রানের পুঁজি নিয়ে বাবর আজমের দল যেভাবে লড়াই করেছে তা প্রশংসার যোগ্যই।

অবশ্য, পাকিস্তানের এই লড়াইয়ে পিছনে নাসিম শাহর অবদানই বেশি। অভিষেক ম্যাচেই দলে তারকা পেসার শাহীন শাহ আফ্রিদির অভাব বুঝতে দেননি তিনি। অল্প রানের পুজিতে দলকে শুরুতে ব্রেকথ্রু এনে দেন তিনি।

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই ভারতীয় ওপেনার কেএল রাহুলকে বোল্ড করে প্যাভিলিয়নে ফেরান। প্রথম ওভারেই রান দিয়েছেন মাত্র ৩।

নাসিম শাহ দ্বিতীয় ওভারও করেছেন দুর্দান্ত। মূলত, তরুণ এই পেসারকে সামলাতে গিয়েই ম্যাচে কিছুটা চাপে পড়ে ভারত। নিজের তৃতীয় ওভারে ফর্মের তুঙ্গে থাকা সূর্যকুমার যাদবকে দারুণ এক ডেলিভারিতে বোল্ড করে পাকিস্তানকে জয়ের স্বপ্নও দেখান তিনি।

যদিও শেষ পর্যন্ত দলকে জেতাতে না পারেননি, তবে নিজের শেষ ওভার বারবার চোট নিয়েও বল করে ক্রিকেট প্রেমিদের হৃদয় জিতেছেন তিনি। এক পর্যায়ে পা খুড়ে খুড়েও বল করেছেন নাসিম শাহ। ওভার শেষ করেই চোট নিয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি।

ব্যাটারদের ব্যর্থতায় পাকিস্তান জিততে পারেনি বটে, তবে শাহিন আফ্রিদির পর তরুণ নাসিম শাহর উথান বাবর আজমদের বোলিংয়ে আরও বৈচিত্র্য আনবে, এটা নিঃসন্দেহে বলা যায়। হারের ম্যাচে পাক ক্রিকেটের জন্য এটাই কেবল স্বস্তির খবর!।

অবশ্য মাত্র ১৬ বছর বয়সে মাকে হারানো ছেলেটার কাছে খুড়ে খুড়ে হেটে বল করার এটুকু যন্ত্রণা বোধহয় কিছুই না। নির্মম এই পৃথিবীর সবটুকু বেদনাও স্রেফ নস্যি। এই আঘাত, যন্ত্রণা আর সাহসটুকুই উনিশ বছর বয়সেও তাকে দিয়ে লড়াই করার মানসিকতা।

নাসিম শাহ লম্বা সময় খেলতেই এসেছেন। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের বিপক্ষেই এমন রাজকীয় অভিষেকে সেই বার্তাই যেন দিয়ে দিলেন গতির রাজ্যের নতুন রাজা।

আরো পড়ুন:

টিভিতে দেখুন আজকের খেলা

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ