spot_img
20 C
Dhaka

২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ইং, ১৩ই মাঘ, ১৪২৯বাংলা

মোবাইল ফোন উৎপাদনে চীনের সঙ্গে লড়াইয়ে নেমেছে ভারত

- Advertisement -

ডেস্ক রিপোর্ট, সুখবর ডটকম: ভারতের বেশিরভাগ ফোনই বাইরের দেশ থেকে আমদানিকৃত; এটা ২০১৪ সালের তথ্য। অন্যদিকে, ইন্ডিয়া সেলুলার অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স অ্যাসোসিয়েশন (আইসিইএ) এর তথ্য অনুসারে, ২০২২ সালে ভারতে বিক্রি হওয়া প্রায় সমস্ত ফোনই বাইরে তৈরি।

এই ফোনগুলোর মধ্যে বেশিরভাগই তাইওয়ানের ফক্সকন বা দক্ষিণ কোরিয়ার স্যামসাং কোম্পানি তৈরি করেছে।

কিন্তু ভারতীয় প্রতিষ্ঠানের সংখ্যাও দ্রুতগতিতে বাড়ছে।

মাইক্রোম্যাক্স ইনফরমেটিক্স সেই ভারতীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে একটি। এ কোম্পানি ২০০৮ সালে মোবাইল ফোন ব্যবসায় প্রবেশ করে। মাত্র দুই বছরের মধ্যে এটি ভারতের সবচেয়ে সস্তা ফোনের অন্যতম নির্মাতা হয়ে ওঠে। এ কোম্পানির উৎপাদিত ফোনগুলো ফিচার ফোন নামে পরিচিত।

তবে এতকিছু সত্ত্বেও, মাইক্রোম্যাক্সের সহ-প্রতিষ্ঠাতা রাজেশ আগরওয়াল বলেছেন যে চীনা স্মার্টফোন নির্মাতাদের সাথে প্রতিযোগিতা করা বেশ কঠিন।

তিনি জানান, তার সামর্থ্য অনুযায়ী তিনি প্রায় দশ লাখ ফোন হয়ত বিক্রি করতে পারবেন। কিন্তু চীনাদের অর্থনৈতিক সুবিধা রয়েছে, তারা সেই সময়েই ১০০ লাখ বা তার বেশি ফোন বিক্রি করতে পারবে। চীনাদের উৎপাদনের ক্ষেত্রে বিশাল ক্ষমতা রয়েছে।

তার উপরে, চীনা কোম্পানিগুলো তাদের প্রায় সমস্ত উপাদান স্থানীয়ভাবে উৎপাদন করতে পারে।

ভারত স্থানীয়ভাবে চার্জার, তার এবং ব্যাটারিসহ কিছু অংশ তৈরি করতে পারে। কিন্তু স্ক্রিন এবং কম্পিউটার চিপের মতো অত্যাধুনিক অংশগুলো তাকে বাইরের দেশ থেকেই আমদানি করতে হয়।

বিশ্বব্যাপী চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে ফোন, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট এবং অন্যান্য ডিভাইস উৎপাদনে ভারতকে স্বয়ংসম্পূর্ণ করে তুলতে ভার‍ত সরকারের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত।

২০২১ সালের এপ্রিলে, ভারত সরকার টেলিকম এবং নেটওয়ার্কিং সরঞ্জামের জন্য প্রোডাকশন লিঙ্কড ইনসেনটিভ (পিএলআই) স্কিম চালু করেছে।

পিএলআই স্কিম ভারতে তৈরি মোবাইল ফোনের উপাদানগুলোতে ভর্তুকি সুবিধা দেয়। এ স্কিম ফোন কোম্পানিগুলোকে আরও প্রতিযোগিতামূলক করে তুলবে এবং কোম্পানিগুলোর উৎপাদন আরো বাড়াবে বলে আশা করা হচ্ছে।

ইন্ডিয়া সেলুলার অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স অ্যাসোসিয়েশন (আইসিইএ) অনুসারে, এই মুহূর্তে একটি ভারতীয় ফোনের ১৫% থেকে ২০% অংশ ভারতে তৈরি হয়।

পিএলআই স্কিমের লক্ষ্য হল এটিকে ৩৫% থেকে ৪০% এর মধ্যে উন্নীত করা।

আইসিইএ এর চেয়ারম্যান পঙ্কজ মহিন্দ্রু জানান, ভারত বর্তমানে বিশ্বের দ্রুততম বর্ধনশীল মোবাইল ফোন নির্মাতাদের মধ্যে একটি এবং বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল হ্যান্ডসেট প্রস্তুতকারক হিসাবে আবির্ভূত হয়েছে।

মোবাইল ফোন ভারতের ইলেকট্রনিক রপ্তানির সবচেয়ে বড় একক উপাদান এবং আইসিইএ অনুযায়ী, আগামী বছর রপ্তানির ৫০%-ই ইলেকট্রনিকস হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

ভারতীয় ফোন নির্মাতা লাভা ইন্টারন্যাশনালের চেয়ারম্যান হরি ওম রাই বলেন, মোবাইল ফোন নির্মাতাদের জন্য ভারত পরবর্তী বৈশ্বিক কেন্দ্র হয়ে উঠবে।

আই. কে. জে/

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ