spot_img
20 C
Dhaka

২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ইং, ১৩ই মাঘ, ১৪২৯বাংলা

মানসিক স্বাস্থ্যসেবায় পাশে আছে ‘মনের বন্ধু’

- Advertisement -

নিজস্ব প্রতিবেদক, সুখবর ডটকম: বর্তমান সময়ে ক্যানসারের চেয়েও ভয়াবহ সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে মানসিক সমস্যা–এমনটাই মত বিশেষজ্ঞদের। তাই শারীরিক সুস্থতার পাশাপাশি মানসিক সুস্থতাকেও গুরুত্ব দিতে হবে। এ নিয়ে বিশ্বজুড়েই কাজ চলছে। পিছিয়ে নেই বাংলাদেশও।

মানসিক স্বাস্থ্যসেবা দেশের প্রত্যেকটি জায়গায় ছড়িয়ে দিতে বাংলাদেশেই চালু হয়েছে অনলাইন ভিত্তিক অ্যাপ ‘মনের বন্ধু,’ যা কিনা মানুষের মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সাহায্য করবে।

মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত আইসিটি টাওয়ারের বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) মিলনায়তনে ‘মনের বন্ধু’ অ্যাপটি উন্মোচন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

শরীরের সুস্বাস্থ্য, সুস্থতা ও শান্তিপূর্ণ জীবনের জন্য মানসিক প্রশান্তির বিকল্প নেই। মানসিকভাবে সুস্থ থাকলেই জীবনের অনেক বড় বড় সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। অপরদিকে কেউ যদি মানসিকভাবে অসুস্থ থাকে তাহলে অনেক তুচ্ছ কাজও তার পক্ষে করা সম্ভব হয় না।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ধারণা, ২০৩০ সাল নাগাদ বিশ্বে আর্থ সামাজিক ক্ষেত্রে বড় সংকটের তৈরি করতে যাচ্ছে এই মানসিক সমস্যা।

গবেষক ও চিকিৎসকরা মনে করছেন, মানসিক সমস্যা মানেই পাগল নয়। অন্যান্য রোগের মতোই এটি একটি ব্যাধি। সাধারণভাবে প্রতি পাঁচজনের মধ্যে একজন তার জীবদ্দশায় কখনও না কখনও মানসিক সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে থাকেন বা হতে পারেন। তাই চিকিৎসা, মেডিটেশন ও সঠিক পরামর্শের মাধ্যমে এর সঠিক নিরাময় সম্ভব। তবে শুরুতেই মানসিক সমস্যাটাকে গুরুত্ব না দিয়ে যদি কেউ অবহেলা করে তাহলে হতে পারে বড় ধরনের বিপত্তি। এই সমস্যা তখন অনেক বেশি মাত্রায় বেড়ে গিয়ে তীব্র আকার ধারণ করলে মানুষ আত্মহত্যা পর্যন্ত করে ফেলেন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্যমতে, প্রতি ৪০ সেকেন্ডে কেউ না কেউ আত্মহত্যার মাধ্যমে প্রাণ হারায়। আত্মহত্যাকারীরা কোনো না কোনোভাবে মানসিক রোগে আক্রান্ত ছিলেন। এ থেকে বোঝা যায়, মানসিক সুস্বাস্থ্য ও প্রশান্তি মানুষের কত বেশি জরুরি। কিন্তু এ মানসিক প্রশান্তি পাওয়ার উপায় কী?

‘মনের বন্ধুর’ প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নিবাহী কর্মকর্তা তৌহিদা শিরোপাকে এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা প্রত্যেকেই কোনো না কোনোভাবে মানসিকভাবে অসুস্থতা বোধ করি। এই মানসিক অবসাদের অবসান ঘটাতে মনের বন্ধু ব্যাপক কার্যকর ভূমিকা রাখবে বলে আমার বিশ্বাস। মানসিক স্বাস্থ্যসেবা সারাবিশ্বের মানুষের কাছে হাতের নাগালে নিয়ে যাওয়ার জন্যই আমরা কাজ করছি। মনের বন্ধু একটি মানসিক স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র। সব ধরনের মানসিক, সামাজিক, পারিবারিক সমস্যা, সংকোচ ও দ্বিধায় মানসিক সেবা দিয়ে থাকে মনের বন্ধু। ২০১৬ সাল থেকে আমাদের প্রশিক্ষিত অভিজ্ঞ মনোবিদেরা সব ধরনের গোপনীয়তা বজায় রেখে এ সেবা দিয়ে আসছেন।’

তিনি বলেন, টেকসই লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) নিশ্চিত করার লক্ষ্যে দেশের সব নাগরিকের জন্য সহজ ও সাশ্রয়ী মানসিক স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করা হয় এ প্ল্যাটফর্মে। অভিজ্ঞ ও বিশেষজ্ঞ মনোবিদ (সাইকো সোশাল এক্সপার্ট) ও স্বাস্থ্যকর্মীদের মাধ্যমে এ প্ল্যাটফর্মে ৩১ হাজার মানুষকে সরাসরি ও অনলাইন কাউন্সেলিং সেবা দিয়ে এসেছে। পাশাপাশি গত ৫ বছরে বিভিন্ন কর্মশালা, প্রশিক্ষণ ও সচেতনামূলক কার্যক্রমের মাধ্যমে ১২ লাখ মানুষকে মানসিক স্বাস্থ্যসেবা খাতের সঙ্গে যুক্ত করেছে। সেই সঙ্গে অনলাইনে প্রাথমিক সেবা দিয়েছে ৪০ লাখ মানুষকে।

আমাদের দৈনন্দিন জীবন ব্যবস্থায় নানাবিধ বাধা-বিপত্তি ও প্রতিকূল পরিস্থিতিতে মানসিক চাপমুক্ত থাকা খুবই কষ্টকর। বিষণ্নতা, হতাশা, দুঃশ্চিন্তা আমাদের প্রতিদিনের সঙ্গী। প্রত্যেকটা মানুষই জীবনের কোনো না কোনো সময়ে কোনো বিষয় নিয়ে মানসিক অসুস্থতার মধ্যে দিয়ে যান। এ সময় সবচেয়ে বেশি দরকার মানসিক সাপোর্ট। যদি সঠিক সময়ে সঠিক চিকিৎসা পাওয়া যায় তাহলে অতি সহজেই এর থেকে প্রতিকার পাওয়া সম্ভব৷ সে লক্ষ্যেই দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছে মনের বন্ধু।

‘মনের বন্ধু’ শুধু স্টার্টআপ হিসেবে নয়, প্রত্যেকটি পরিবার এবং দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের সন্তানদের নিরাপদ সুস্থ-সবল একজন আদর্শ নাগরিক বিনির্মাণের জন্য গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে আসছে। দীর্ঘ ৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে কাজ করার পর তারা ‘মনের বন্ধু’ নামেই একটি অনলাইন অ্যাপ উন্মোচন করেন। যাতে দেশের যে কোনো প্রান্তে বসে মানসিক সমস্যায় অতি দ্রুততার সঙ্গে সমাধান পাবে মানুষ। গুগল প্লে স্টোর থেকে মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক অ্যাপ ‘মনের বন্ধু’ নামিয়ে যে কোনো সমস্যার জন্য তারা কথা বলতে পারবেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে৷ পরামর্শ নিতে পারবেন যে কোন বিষয় সম্পর্কে।

মনোরোগ চিকিৎসক ও জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক ডা. আহমেদ হেলাল এই বিষয়ে বলেন, ‘মন ভালো না থাকলে শরীর ভালো থাকে না। শুধু শারীরিক স্বাস্থ্যকে গুরুত্ব দিলে আমরা সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে পারব না। তাই মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে আমাদের সবাইকে কাজ করতে হবে।’

অভিনেত্রী অপি করিমকে এই অ্যাপ বিষয়ে বলেন, ‘মনের বন্ধু থেকে আমি প্রতিদিন মানসিক স্বাস্থ্যবিষয়ক বিভিন্ন জিনিস শিখি। যা আমাকে মানসিকভাবে ভালো থাকতে সাহায্য করে।’

মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘মানসিক অসুস্থতা মানেই পাগল নয়। আমরা অনেক সময় আমাদের ভাই-বোন, বন্ধুদের মানসিক অসুস্থতার কথা শুনি, তখন তাকে পাগল না বলে সঙ্গ দেয়া প্রয়োজন। এক্ষেত্রে মনের বন্ধু অ্যাপ আর্দশ হতে পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘জীবনে চলার পথে আসা নানা বাধা-বিপত্তি ও সীমাবদ্ধতায় আমাদের অনেক বন্ধু, ভাই-বোন মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন। অনেকে আত্মহত্যা পর্যন্ত করে ফেলে। এই সময় তাদের দরকার একটু মানসিক সহযোগিতা। তাহলেই অনেক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমার মনে হয় আমাদের সাফল্যের পেছনে ছোটা উচিত নয়। সাফল্যের কোনো শেষ নেই। তাই আপনি যতই ছুটবেন সাফল্য অধরা থেকে যাবে। তখন আপনি মানসিকভাবে অসুস্থ বোধ করবেন। তাই আমাদের সাফল্যের পেছনে না ছুটে সন্তুষ্টির পেছনে ছোটা উচিত। আপনি কোনো কাজ করে সন্তুষ্টি অর্জন করলেই মানসিকভাবে প্রশান্তি পাবেন।’

মানসিকভাবে শান্তিতে থাকার উপায় বাতলে পলক বলেন, সিম্পল লিভিং, হাই থিংকিং’ মতাদর্শে এগুতে পারলেই জীবনে শান্তি ও সুখ পাওয়া যায়। মানসিকভাবে শান্তিতে থাকা যায়। আপনার চিন্তাচেতনা কতটা উচ্চমানের, আপনার কর্মটা কতটা মহৎ সেটাই মানুষের জীবনে গুরুত্বপূর্ণ। আপনার জুতা, জামার দাম কত তা কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ নয়। তাই আমাদের কাজে সাফল্যের চেয়ে, সন্তুষ্টি খোঁজা প্রয়োজন। তবেই মানসিক স্বাস্থ্য ভালো থাকবে। একটু আশা, ভালোবাসা ও সহানুভূতি পেলে মানুষ অনেক কিছুই সাফল্যের সঙ্গে সম্পন্ন করতে পারে।

তিনি আরও বলেন, মানুষের পেটের ক্ষুধা মেটাতে পারে খাদ্য, আর মনের ক্ষুধা মেটাতে দরকার তিনটি জিনিস। আর তা হলো- খেলাধুলা, সাহিত্য ও সংগীত। এই তিনটি জিনিসের সঙ্গে যদি আমরা নিজেকে সম্পৃক্ত করতে পারি তাহলেই একটু সুন্দর ও সুস্থ জাতি গড়ে তোলা সম্ভব। আর এর জন্য সবচেয়ে জরুরি মানসিক সুস্থতা বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

অ্যাপটি ডাউনলোড করতে ডিজিট করুন গুগল প্লে স্টোরে। এ ছাড়া নতুন অ্যাপসহ মনের বন্ধু সম্পর্কে জানতে ভিজিট করুন www.monerbondhu.org অথবা ফোন করুন ০১৭৭৬৬৩২৩৪৪ নম্বরে।

এম/

আরো পড়ুন:

শক্তিশালী পাসপোর্ট সূচকে বাংলাদেশের উন্নতি

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ