spot_img
27 C
Dhaka

২৯শে নভেম্বর, ২০২২ইং, ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯বাংলা

মরুর দেশে ফুটবলের বিশ্বযুদ্ধ শুরু আজ

- Advertisement -

ক্রীড়া ডেস্ক, সুখবর ডটকম: মরুর বুকে প্রথম বিশ্বকাপ। সে কারণে যে ফুটবল বিশ্বকাপের অনেক প্রথা, অনেক রেওয়াজও ভেঙে গেছে, সেটা আপনি জেনে গেছেন বহু আগেই।

করোনায় গোটা পৃথিবী ওলট-পালট হয়ে গিয়েছিল। করোনা ঝড় এখনো শেষ হয়নি। ঝড় সামলে গুছিয়ে ওঠা নতুন পৃথিবী আজ এক মঞ্চে চোখ রাখবে। দুনিয়ার সবচেয়ে বড় খেলার আকর্ষণ বিশ্বকাপ ফুটবল। আগামী ১৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত পৃথিবীর মানুষ একটা মঞ্চে দাঁড়াবে।

রাজনৈতিক হানাহানি, দেশে দেশে যুদ্ধ, মারণাস্ত্র নিক্ষেপ, যেখানে যেটাই হোক, বিশ্বকাপ ফুটবল ময়দানে ফোটা ফুলগুলো সৌরভ ছড়াবে আহত মানুষগুলোর মধ্যেও। করোনায় পেছায়নি একমাত্র খেলা সেটা বিশ্বকাপ ফুটবল। বাইশতম আসর বাইশেই হচ্ছে। বিশ্বকাপ ফুটবল জুনে শুরু হয়ে জুলাইয়ে শেষ হয়। এবার ব্যতিক্রম। শীত মৌসুমে নভেম্বরে শুরু হয়ে ডিসেম্বরে শেষ হচ্ছে।

এশিয়ার অন্যতম ধনী দেশ কাতারে হচ্ছে বিশ্বকাপ। উত্তপ্ত গরম, তাই বিশ্বকাপ শীতে আনা হয়েছে। ফিফার টেবিল থেকে সিদ্ধান্ত আনতে অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে। আয়োজকের নাম ঘোষণা হওয়ার পরও বহুভাবে চেষ্টা হয়েছিল যেন কাতার থেকে বিশ্বকাপের মঞ্চটা তুলে নিয়ে অন্য কোনো দেশে বসিয়ে দেওয়া হয়। গরমে খেলতে পারবে না বলে কাতারের কাছ থেকে কেড়ে নিতে কমচেষ্টা হয়নি। কাতার বলে দিল স্টেডিয়ামে ঠান্ডা বাতাস ছড়িয়ে দেওয়া হবে।

এক বিশ্বকাপ আয়োজন করতে গিয়ে কাতারকে কতো কিছুই না করতে হচ্ছে। কাড়ি কাড়ি অর্থ খরচের পাশাপাশি সহ্য করতে হচ্ছে পশ্চিমা বিশ্বসহ অন্যদের নানান সমালোচনাও। সবকিছু ছাপিয়ে এখন ফুটবল উৎসব দেখার অপেক্ষা। আজ রবিবার সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। পারস্য উপসাগরের তীরে বিশ্বকাপের মহারণে সামিল হতে যাচ্ছে সবাই।

১৯৩০ সালে যার গোড়াপত্তন হয়েছিল।  ২০২২ সালে এসে তা ২২তম আসরে গিয়ে ঠেকেছে। মধ্যপ্রাচ্যের দেশটিতে প্রথমবারের মতো হতে যাচ্ছে এই বিশ্বের সবচেয়ে আকর্ষণীয় এক মহাযজ্ঞ। যেই আকর্ষণ শুধু চুম্বকের মতো টানেই না, নিয়ে যায় অতলেও।

বিশ্বকাপ ফুটবলকে সামনে রেখে রোমাঞ্চ তো রয়েছেই। সেই সঙ্গে বাড়ছে টেনশনও। কাতার কি পারবে ঠিকঠাক বিশ্বকাপ শুরুর সঙ্গে শেষটাও করতে? কাতারের জন্য যা বাড়তি চ্যালেঞ্জ।

এই চ্যালেঞ্জে ৩২টি দেশ আটটি স্টেডিয়ামে ২৯ দিনের লড়াইয়ে নিজেদের সপে দিতে যাচ্ছে। প্রথম দিনেই মাঠে নামতে যাচ্ছে স্বাগতিক কাতার ও ইকুয়েডর। ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায়। তার আগে রাত আটটায় অনুষ্ঠিত হবে জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠানও।

১৯৭১ সালে যুক্তরাজ্য থেকে স্বাধীনতা প্রাপ্তির পর কাতার একটু একটু করে নিজেদের গড়ার দিকে মনোযোগ দিয়েছে। অফুরন্ত প্রাকৃতিক গ্যাস রফতানি করে বিশ্বের অন্যতম ধনী দেশের তালিকায় কাতারিদের নাম রয়েছে।

আর তাই তো বিশ্বকাপের মতো বড় আসর সফল করতে ২১০ বিলিয়ন ডলার ব্যয় করতে তাদের কুণ্ঠা নেই। আয়তনে ঢাকার প্রায় চারগুণ কাতার। বিশ্বকাপের ইতিহাসে এতো কম আয়তনের দেশে যে আগে কখনও এমন আসর হয়নি! আর তা সফল করতে স্বাগতিকদের চলছে রাত-দিনের প্রচেষ্টা।

কাতারিদের পাশাপাশি এখানে প্রবাসীদেরও বিশ্বকাপ নিয়ে উত্তেজনা কম নয়। বিশেষ করে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর। ফিফা ফ্যান জোনে তো এ নিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশ। পুরো দেশেই এখন বলতে গেলে বিশ্বকাপের আমেজ। দোহার রাস্তায় রাস্তায় মাঝে মধ্যে চোখে পড়বে বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন দেশের জার্সি গায়ে সমর্থকদের হই-হুল্লোড়।

বিশ্বকাপ উপলক্ষে নতুন করে হয়েছে সাতটি স্টেডিয়াম। আর পুরনো স্টেডিয়ামটির হয়েছে বড় সংস্কারও। হয়েছে মেট্রোরেল, হোটেল, রাস্তাঘাটসহ অনেক কিছুই।

আর সবার কথা চিন্তা করে এই প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ হচ্ছে শীত মৌসুমে। যদিও এখন কাতারের আবহাওয়া কম উত্তপ্ত নয়। তবে স্টেডিয়ামগুলো তাপানুকূল করে রাখায় গরমের তেজটা সেভাবে অনুভব হবে কমই।

এমন আয়োজন দেখে কুয়েতের ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক নাদুম খলিল তো ইতিবাচক বার্তাই দিলেন। মেইন মিডিয়া সেন্টারের বাইরে ঢোকার মুখে জানালেন,কাতার বেশ ভালোভাবেই সবকিছু আয়োজন করছে। তবে আমাদের এখান অনেকেই আবার তা দেখে হিংসা করে। তবে আয়োজনকে তো ভালো বলতে হবে।

বিশ্বকাপের রং উজ্জ্বল করতে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা শহরে পা দিয়েছে। অন্যরাও এসেছে। পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলের সামনে হেক্সা জয়ের মিশন। ২০০২ সালের পর নেইমার-পাকেতাদের হাতে ট্রফি দেখার অপেক্ষায় সমর্থকরা। আর ১৯৮৬ সালের পর লিওনেল মেসির হাতে বিশ্বকাপ ট্রফি দেখলে আনন্দে আত্মহারা হবে অন্য সমর্থকরা। তাদের চোখ রাঙানি দিতে এমবাপ্পে-করিম বেনজেমা কিংবা লুকাকু, কেইনরা কম যাবেন কেন।

আয়োজক দেশ হিসেবে কাতার লড়াই করবে। বাছাইয়ে খেলেছিল কাতার। বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলতে ঢাকায় এসেছিল। যোগ্যতার ভিত্তিতে না হলেও কাতার সরাসরি লড়াই করবে। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে, ফুটবল ময়দানে এই যুদ্ধের লড়াইয়ে কাতার কোনো আলোচনায় নেই। সব আলো পড়ছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স, ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, জার্মানি, পর্তুগাল, স্পেন, ইংল্যান্ড, ক্রোয়েশিয়া, বেলজিয়ামের দিকে। সার্বিয়া, তিউনিশিয়া, মরক্কো, ক্যামেরুন, পোল্যান্ড, ইকুয়েডর, ওয়েলস, কতটা বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারবে সেটা সময় বলে দেবে।

চিন্তার কথা হচ্ছে, কাতারের আবহাওয়া। এই আবহাওয়ায় ইউরোপীয়ান ফুটবলার কিংবা দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবলাররা কত দ্রুত মানিয়ে নিতে পারবে তা নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। কারণ ইউরোপিয়ান ফুটবলাররা গরমে খেলতে এসে কষ্ট করতেই হবে। গরমের কারণেই বিশ্বকাপ আয়োজন শীতের সময়টাকে বেছে নেওয়া হয়েছে। গ্রুপ পর্বের খেলা মাত্র তিনটি করে। খেলা শুরু হয়ে মানিয়ে নিতে গিয়ে যদি আবহাওয়ার কাছে হেরে যায় তাহলে সেই দলের বিশ্বকাপ ফুটবল হবে সবচেয়ে বেদনাদায়ক।

এবারের বিশ্বকাপে নতুন চ্যাম্পিয়নও হতে পারে। বিশ্বকাপের সবগুলো আসর দেখলে বলা যায়, চ্যাম্পিয়নরা চ্যাম্পিয়ন হয়েছে প্রায়। শেষ বার নতুন চ্যাম্পিয়ন এসেছিল স্পেন ২০১০ সালে। কেউ বলতে পারে না ক্রোয়েশিয়া, বেলজিয়াম বেশি ভালো খেলে দিতে পারে। ব্রাজিল আর্জেন্টিনা দলে ছয়-সাত জন ভালো ফুটবলার রয়েছেন। যে কেউ একটা ম্যাচ বের করে দিতে পারেন। এখানেও একটা টেনশন আছে। সেটা হচ্ছে বিশ্বকাপের আগে ইউরোপের লিগ চলছিল। একের পর এক ইনজুরি হয়েছে। বিশ্রাম পায়নি। অন্যান্য সময় টিম কম্বিনেশনের সুযোগ ছিল। এবার সেটা হয়নি। খেলোয়াড়রা চোট পেয়ে চূড়ান্ত একাদশে ঢুকতে পারেননি। আবার কেউ চোট নিয়েই একাদশে ঢুকেছেন। কারণ, তাদের হাতে বিকল্প নেই। আবার এমন যদি হয় কারো মূল প্লেয়ারই ইনজুরিতে পড়ে গেলেন, কিংবা লালকার্ড পেয়ে মাঠ ছাড়লেন। তাহলে তো সেই দলগুলোর অবস্থা খুবই খারাপ হবে।

চ্যাম্পিয়ন হতে হলে কমবেশি ম্যাচ জিততে হবে। ইউরোপের লিগে খেলে আসা ক্লান্ত ফুটবলাররা বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের তিন ম্যাচ পর্যন্ত দৌড়াতে গিয়ে কতটা স্বাচ্ছন্দ্যে থাকবেন সেটাও একটা ভাবনার বিষয়। তার ওপর এশিয়ার আবহাওয়া বাধা তো আছেই। আর কোনো কথা নয়। টিভির পর্দায় বসে পড়ুন। হাতে রাখুন খাতাকলম। হিসাব করুন প্রিয় দল কোথায় যায়। সব জল্পনা-কল্পনার অবসান হতেই আজ শুরু ফুটবলের বিশ্বযুদ্ধ।

এম/

আরো পড়ুন:

সমালোচকদের জবাব দেয়ার বিশ্বকাপ রোনালদোর

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ