spot_img
28 C
Dhaka

১লা ডিসেম্বর, ২০২২ইং, ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯বাংলা

সর্বশেষ
***বীর মুক্তিযোদ্ধা হত্যা মামলায় এক্সেল কামালের ফাঁসি কার্যকর***চেক ডিজঅনার মামলা : হাইকোর্টের রায় আপিল বিভাগে স্থগিত***‘মিসেস ইউনিভার্সেস বাংলাদেশ-২০২২’ এর আয়োজক গ্রেফতার***করোনার টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়া হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী***যাচাইয়ের পর বিদ্যুতের দাম বাড়ানো নিয়ে সিদ্ধান্ত : নসরুল হামিদ***যশোরের ভৈরব নদে কুমিরের ‘রৌদ্রস্নান’ : সতর্ক থাকার আহ্বান***কী কারণে রানী মুখার্জি সাইফের চুমু খেতে বাধ্য হয়েছিলেন?***পাবনার বনমালী শিল্পকলা কেন্দ্রে থিয়েটার আর্ট ইউনিটের ‘মাধব মালঞ্চী’***‘বাঁশরী’তে আজ নজরুল-সংগীত পরিবেশন করবেন পপলী চক্রবর্তী***‘সোনারতরী’তে আজ গাইবেন শিল্পী জুয়েল দে

মরুভূমির বুকে আধুনিক শহর

- Advertisement -

মাহবুব মারুফ, সুখবর বাংলা: নেই কোনো গাড়ি, নেই কোনো রাস্তা। স্বাভাবিকভাবেই সেখানে থাকবে না দূষণও। থাকবে কৃত্রিম চাঁদ, উড়ন্ত ট্যাক্সির ব্যবস্থা। বাড়িঘর পরিষ্কারের কাজ করবে রোবট। পুরো শহর হবে কার্বনমুক্ত। এমনই এক শহর তৈরি করতে চলেছে সৌদি আরব।

২০১৭ সালে সৌদি সরকার ‘নিয়োম’ প্রকল্পের ঘোষণা করে। এই প্রকল্পেই নতুন শহর তৈরির ঘোষণা হয়েছিল। সৌদি আরবের কর্তৃপক্ষই একে বর্ণনা করেছে বিশ্বের সবচেয়ে উচ্চাকাঙ্ক্ষী প্রকল্প হিসেবে।

দেশটির উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের বিশাল এলাকা জুড়ে লোহিত সাগরের তীরে মরুভূমির উপর গড়ে তোলা হচ্ছে এটি। সৌদি আরব বলছে, ১৬টি অঞ্চল নিয়ে গঠিত হবে নিয়োম, আর ৩৩টি নিউইয়র্কের সমান হবে নতুন এই শহরের আকার।

এই প্রকল্প নিয়ে সৌদি আরবের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও যুবরাজ বলেন, ‘এই প্রকল্পে থাকবে না কোনো যানবাহন, থাকবে না কোনো রাস্তা এবং হবে না কোনো কার্বন নির্গমন।’ অর্থাৎ গড়ে তোলা হবে প্রাকৃতিক পরিবেশে দূষণহীন এক শহর।

দু’হাজার আঠারো সালের অক্টোবরে সৌদি যুবরাজ ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ বিন সালমান সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গকে বলেছিলেন, নিয়োম শহরের প্রথম পর্যায়ের কাজ প্রায় শেষের দিকে। তবে শহরটির সব কাজ শেষ হবে ২০২৫ সালে।

দ্য লাইন

২০২১ সালের জানুয়ারিতে, ১৭০ কিলোমিটার নিয়োম এলাকার মধ্যে দীর্ঘ রৈখিক শহর হবে। এবং এর প্রস্থ হবে ২০০ মিটার। এর নাম হবে ‘দ্য লাইন’। সৌদি প্রেস এজেন্সির বরাতে সৌদি গেজেট জানিয়েছে, ‘দ্য লাইন’ শহরটি সভ্যতার বিপ্লব ঘটাবে। যা মানুষকে অগ্রাধিকারে রেখে আশেপাশের প্রাণ-প্রকৃতি সংরক্ষণের মাধ্যমে একটি অভূতপূর্ব শহুরে জীবনের অভিজ্ঞতা প্রদান করবে।

‘দ্য লাইন’ শহরে প্রায় ৯০ লাখ বাসিন্দার থাকার ব্যবস্থা করা যাবে যা এ ধরনের কোনো শহরের ক্ষেত্রে কখনো শোনা যায়নি।

‘দ্য লাইন’-এর বাইরের দিক গ্লাস দ্বারা নির্মিত হবে। যা একে একটি অনন্য রূপ প্রদান করবে। এর ভেতরে অসাধারণ অভিজ্ঞতা এবং জাদুকরী মুহূর্ত তৈরি করবে। অন্যদিকে শহরটি হবে সম্পূর্ণ রূপে ডিজিটালাইজড।

‘দ্য লাইন’-এর আদর্শ জলবায়ু সারা বছর ধরে নিশ্চিত করবে, যেন এর বাসিন্দারা চারপাশে হাঁটতে হাঁটতে প্রকৃতি উপভোগ করতে পারেন। তারা মাত্র ৫ মিনিট হাঁটার দূরত্বেই ‘দ্য লাইন’-এর সমস্ত সুযোগ-সুবিধা পাবেন এবং ২০ মিনিটের এন্ড-টু-এন্ড ট্রানজিটসহ একটি উচ্চ-গতির রেল সেবা পাবেন।

‘দ্য লাইন’ শহরের নকশার জন্য একটি নতুন পদ্ধতির প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। যেখানে শহরের বিভিন্ন কার্যাবলি উল্লম্বভাবে কয়েকটি স্তরে (উপর, নিচে বা আড়াআড়িভাবে) মানুষকে নির্বিঘ্নে চলাফেরা করার সুযোগ দেয়। যা ‘জিরো গ্র্যাভিটি আরবানিজম’ নামে পরিচিত।

বিদ্যুৎ ও পানি

মরুভূমিতে পানির সংকট। আর পৃথিবীবাসী আগামীতে জ্বালানি তেলের ওপর নির্ভরতা কমাতে চায়। এদিকে সৌদি আরবের তেলের রিজার্ভও ফুরিয়ে আসছে। এমতাবস্থায় NEOM সিটি কাজ করবে সৌর বিদ্যুতের উৎপাদন ও ব্যবহার বাড়ানোর জন্য। একই সাথে বিশুদ্ধ পানির চাহিদা মেটাতে থাকবে নানা প্রকল্প।

নিয়োমইন্ডাস্ট্রিয়াল সিটি (NIC)

নিয়োম ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিটি (NIC) দুবা শহরের উত্তরে প্রায় ২৫ কিলোমিটার এবং মোটামুটিভাবে ২০০–২৫০ বর্গকিলোমিটার জমিতে হবে, যার মধ্যে প্রায় ৪০ বর্গকিলোমিটার NIC গঠন করে। প্রকল্পটি আধুনিক উৎপাদন, শিল্প গবেষণা এবং দুবা বন্দরের সম্প্রসারণকে কেন্দ্র করে উন্নয়নের উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করবে।

যোগাযোগের কেন্দ্র

নিয়োম হবে পৃথিবীর অন্যতম বৃহৎ ও গুরুত্বপূর্ণ যোগাযোগ কেন্দ্র। বিমান, স্থল ও জলপথে বিশ্বের নানা প্রান্তে যাতায়াতের জন্য ট্রানজিট হিসেবে ব্যবহার হবে এই লোহিত সাগরের তীরবর্তী শহর।

কৃষি

নিয়োম পরিকল্পনায় পার্শ্ববর্তী ৬,৫০০ হেক্টর (১৬,০০০ একর) জমিজুড়ে কৃষি ক্ষেত্র পরিণত করবে। ব্যপকভাবে প্রকৌশল বিদ্যার উপর নির্ভর জেনেটিকালি ফসল দেবে।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

তথ্য-প্রযুক্তির সর্বশেষ নানা বিষয় নিয়ে গবেষণার জন্য উপযোগী ল্যাব ও প্রতিষ্ঠান থাকবে ওই সিটিতে। বিশেষ করে আর্টিফিসিয়াল ইন্টিলিজেন্স, ভার্চুয়াল রিয়ালিটি ইত্যাদির ওপর উচ্চতর গবেষণার মাধ্যমে কিভাবে দৈনন্দিন জীবনকে সহজ করা যায় তা নিয়ে কাজ করবেন গবেষকরা।

ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ভবিষ্যত পৃথিবীর নতুন ধরনের নানা স্বাস্থ্যসেবার যাত্রা শুরু হবে নিয়োম থেকে। বায়োটেকনোলজি গবেষণায় নতুন মাত্রা আনতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়া হবে, থাকবে একাধিক গবেষণাগার।

সৌদি আরবের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও যুবরাজের দাবী, প্রাকৃতিক পরিবেশের যে পরিবর্তন সেটা থেকে বাঁচতে এই প্রকল্প। তবে পরিবেশবিদদের মতে, এই প্রকল্পটা তৈরি করতে উল্টো পরিবেশের অনেক ক্ষতি করা হচ্ছে।

আরো পড়ুন:

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের ঘোড়া বিক্রি করলেন রাজা চার্লস

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ