spot_img
27 C
Dhaka

২৯শে নভেম্বর, ২০২২ইং, ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯বাংলা

সর্বশেষ
***যৌনপল্লীর গল্প নিয়ে পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমা ‘রঙবাজার’***কেন ক্ষমা চাইলেন কিংবদন্তি গায়ক বব ডিলান***বিলুপ্তপ্রায় কুমিরের সন্ধান, পুনর্ভবা নদীর তীরে মানুষের ভিড়***সোহরাওয়ার্দী উদ্যান নয়, নয়াপল্টনেই হবে সমাবেশ : বিএনপি***পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ সন্ত্রাসী দল টিটিপি ইসলামাবাদের গলার কাঁটা?***পাকিস্তান-আফগানিস্তানের সম্পর্ক কি শেষের পথে?***শীত মৌসুম, তুষার এবং বরফকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে রাশিয়া : ন্যাটো***নানা সুবিধাসহ বাংলাদেশ ফাইন্যান্সে চাকরির সুযোগ***বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষার সূচি ও আসনবিন্যাস প্রকাশ***পৃথিবীর কিছু অবিশ্বাস্য সৃষ্টি, যা আপনার কাছে খুবই আশ্চর্যজনক লাগবে

ভূমি দখল ও অন্যান্য অপরাধের কেন্দ্রস্থল হয়ে উঠেছে পাকিস্তানের লাহোর

- Advertisement -

নিউজ ডেস্ক: পাকিস্তানের বিস্তৃত প্রাদেশিক রাজধানী লাহোর হয়ে উঠেছে অপরাধীদের, বিশেষ করে ভূমি দখলকারীদের নিরাপদ আশ্রয়স্থল।

গত এক দশক ধরে শহরের আনাচে কানাচে গড়ে উঠা বাড়ির সুযোগই নিয়েছে ভূমি দখলকারীরা। মূলত এই ক্রমাগত বাড়ি দখল এবং ব্যাপক ব্যাবসায়িক কার্যক্রমের জন্যেই শহরের প্রায় ৩০ শতাংশ অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে।

ভূমি দখলকারীরা পুলিশ ও রাজস্ব বিভাগে কর্মীদের মদদে প্রায় অনেক বছর ধরেই জমির মালিকদের সম্পত্তি বেআইনিভাবে দখল করে আসছে। এ কাজের জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষও কোনও ধরনেরই ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এলাকার সমস্ত পুলিশ কর্মকর্তারা অন্যান্য অপরাধকে যতোটা গুরুত্ব দিচ্ছে তেমন গুরুত্ব এসব অপরাধকে দিচ্ছে না। তাই প্রায় নাকের নিচ দিয়েই অপরাধীরা তাদের অপরাধ কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

একটি সূত্র মোতাবেক, এমনই একজন পুলিশ কর্মকর্তা এখন শহরের আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছেন। তার নাকের নিচ দিয়েই ভূমিদস্যুরা সম্পত্তির মালিকদের বেদখল করে সম্পত্তি ভোগ করছে।

এ তথ্য কেন্দ্রীয় পুলিশ অফিসে (সিপিও) পৌঁছালে, আইজিপি এ বিষয়ে অভিযোগ গ্রহণ করেন। তিনি এই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য মুখ্যমন্ত্রীর কাছে বিষয়টি তুলে ধরেন। তবে পাঞ্জাব সরকার, গোয়েন্দা সংস্থা ও বিশেষ শাখার মতো সংস্থাগুলো এক্ষেত্রে নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করেছে।

পিটিআই চেয়ারম্যান ২০২১ সালের জুলাই মাসে এ বিষয়ে বক্তব্য দিয়েছিলেন। তিনি এই ভূমিদস্যুদের আটকাতে বিশেষ আইন প্রণয়নের ব্যবস্থা নিয়েছিলেন যেন ভূমি মালিকদের কষ্ট কিছুটা লাঘব হয়।

ভূমি দখলকারীরা জাল নথি বানিয়ে লাহোরে সবচেয়ে বেশি অপরাধ কার্যক্রম চালাচ্ছে।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও দেখা যায়, যেখানে একজন মহিলা ইকবাল টাউন এলাকায় অন্য এক বৃদ্ধ মহিলাকে টাকা দিয়ে সাহায্য করার সময় ছিনতাইকারীরা তার ব্যাগ ছিনতাই করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় মহিলাটি রাস্তায় পড়ে যান এবং তার হাতে ও মুখে আঘাত পান।

সাম্প্রতিক তথ্য মোতাবেক, লাহোরের বিভিন্ন অংশে ৬৫৫ টির মতো অপরাধ সংঘটিত হয়েছে। এসব ঘটনার মধ্যে ৪৪ টি ছিনতাই, ডাকাতি, মোটরসাইকেল ছিনতাই, মোবাইল ফোন ছিনতাই ইত্যাদি।

কয়েকদিন আগে চারজন অস্ত্রধারী সোহা বাজারে একটি জুয়েলারি দোকানে ঢুকে ১৫ তোলা স্বর্ণালঙ্কার ও অন্যান্য মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যায়। আরেকটি ঘটনায়, সশস্ত্র লোকেরা নবাব টাউন এলাকায় একটি ব্যাংক থেকে বের হওয়ার সময় জুনায়েদ নামক এক ব্যক্তির কাছ থেকে ৯০০,০০০ টাকা ছিনতাই করে।

পুলিশ বিভাগের সরকারি তথ্য মোতাবেক, এই বছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ২৪৯৯ টি ডাকাতি, ৬৭ টি যৌন নির্যাতন ও ৪৯ টি শিশু ধর্ষণের মতো ঘটনা ঘটেছে।

শুধুমাত্র লাহোর শহরেই ১৬৫,৫২৫ টি ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে অপরাধীরা ৭৬ টি গাড়ি ও ৯৫৮ টি মোটরবাইক নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার খবর পাওয়া যায়। তাছাড়াও এই বছরের প্রথম নয় মাসে এ শহরে ১৮৯৪ টি গাড়ি ও ১৯,৩০৪ টি মোটরবাইক চুরির ঘটনা ঘটে।

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ