spot_img
23 C
Dhaka

২৮শে জানুয়ারি, ২০২৩ইং, ১৪ই মাঘ, ১৪২৯বাংলা

খাবারে স্বাদের ভিন্নতা আনতে টক দইয়ের ব্যবহার

- Advertisement -

লাইফস্টাইল ডেস্ক, সুখবর ডটকম: দই বা দধি আমরা সবাই খাই এবং পছন্দও করি। দধি খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য উপকারিও বটে। এই দধি যদি অন্যান্য খাবারের সাথে মিশ্রিত করে খাওয়া হয় তাহলে সেই সব খাবারের স্বাদ ও মান অনেক গুনে বৃদ্ধি পাবে। দধি সাধারণত তিন ধরনের হয়ে থাকে, ১) টক ২) টক-মিষ্টি এবং ৩) মিষ্টি। তবে আজকের রেসিপিতে আমরা টক দইের ব্যবহার নিয়ে আলোচনা করব। তাই চলুন আজকে জেনে নেই কোন কোন খাবারের সাথে টক-দই দিয়ে খাওয়া যাবে।

*** চিকেন টিক্কা মাসালা-

>> যা লাগবে: মুরগির বুকের মাংস ২ পিস, টকদই ১ টেবিল চামচ, লেবু ১ চা চামচ, রসুন কুচি ১/৪ চা চামচ, আদা কুচি ১/৪ চা চামচ, আদা বাটা ১/৪ চা চামচ, পাপরিকা আধা চা চামচ, জিরা গুঁড়া আধা চা চামচ, গরম মসলা ১/৪ চা চামচ, লবণ স্বাদমতো।

>> যেভাবে তৈরি করবেন: প্রথমে মাংসে টকদই, লেবু, রসুন কুচি, আদা কুচি, আদা বাটা, লবণ, পাপরিকা, জিরা গুঁড়া, গরম মসলা দিয়ে ভালো করে মেখে মেরিনেট করে নিন। এবার কাঠিতে মেরিনেট করা মাংসের টুকরাগুলো গেঁথে ফ্রাইপ্যানে ভালো করে ভেজে নিন। ভিন্ন একটি পাত্রে উঠিয়ে রাখুন। এবার আর একটি ফ্রাইপ্যানে তেল দিয়ে রসুন কুচি, পেঁয়াজ কিউব দিয়ে ভেজে হলুদ, মরিচ ও ধনিয়া গুঁড়া দিয়ে ভেজে গরম মসলা গুঁড়া ও পানি দিয়ে নেড়ে টমেটোসস, পাপরিকা, ব্রাউন সুগার দিয়ে গ্রেভি করে নিন। গ্রেভি হয়ে গেলে কাঠিতে ভেজে রাখা মাংস খুলে ঢেলে দিয়ে গ্রেভিতে মিশিয়ে নিন। নামানোর আগে ক্রিম এবং খানিকটা টকদই দিয়ে নেড়ে মিশিয়ে নামিয়ে ওপরে টকদই ও ক্রিম ছড়িয়ে পরিবেশন করুন।

*** লাচ্ছি-

>> যা লাগবে: টকদই ১ কাপ, চিনি ৩ টেবিল চামচ বা আপনার স্বাদমতো, পানি ১/২ কাপ, কুচানো বাদাম ১ চা চামচ (ঐচ্ছিক), বরফ ২ টুকরা।

>> যেভাবে তৈরি করবেন: টকদই, পানি ও চিনি দিয়ে ব্লেন্ড করুন, এখন লাচ্ছি গ্লাসে ঢেলে বরফ, লেবু ও বাদাম দিয়ে পরিবেশন করুন।

*** দই বড়া-

>> যা লাগবে: ১ কাপ মাষকলাইয়ের ডাল, ২ চা চামচ ভাজা জিরা, ধনিয়া, শুকনামরিচ একত্রে গুঁড়া করা, ১/২ চা চামচ গোলমরিচ গুঁড়া, ২ কাপ টকদই, ১/২ কাপ তেঁতুলের চাটনি, ৪ চা চামচ ধনিয়াপাতার চাটনি, ১ চা চামচ ধনিয়াপাতা কুচি, ১/২ চা চামচ বিট লবণ, স্বাদমতো লবণ, পরিমাণমতো তেল।

>> যেভাবে তৈরি করবেন: আগের দিন রাতে ডাল ভিজিয়ে রেখে পরের দিন মিহি করে বেটে নিন। এর মধ্যে লবণ, গোলমরিচের গুঁড়া দিয়ে ফেটিয়ে নিন। এ বাটা ডালটা খুব ভালো করে ফেটিয়ে নিয়ে একটা মুখ ঢাকা পাত্রে ঘণ্টা দুয়েক রেখে দিন। টকদই-এর মধ্যে বিট লবণ ও ভাজা গুঁড়া মসলা দিয়ে মিক্সিতে ভালো করে ফেটিয়ে নিন।

এবার গরম ডুবো তেলে বাটা ডাল থেকে একটি একটি করে বড়া ভেজে তুলুন। হালকা করে ভাজতে হবে। ভেজে তুলে নিয়ে পানিতে কিছুক্ষণ ডুবিয়ে রাখুন। তারপর পানি থেকে বড়াগুলো তুলে নিয়ে অন্য একটা পাত্রে সাজিয়ে রাখুন। ওর ওপর ফেটানো দই ছড়িয়ে দিন। দেখবেন যেন বড়াগুলো ডুবে যায়। এবার এর ওপর তেঁতুলের চাটনি, ধনিয়াপাতার চাটনি, ধনিয়াপাতা ছড়িয়ে পরিবেশন করুন মজাদার দই বড়া।

*** তান্দুরি প্রন সালাদ-

>> যা লাগবে: চিংড়ি ১ কাপ, টকদই ১ চা চামচ, লেবুর রস ১ চা চামচ, কালো গোলমরিচ ১/৪ চা চামচ, ব্রাউন সুগার ১/৪ চা চামচ, আদা বাটা ১/৪ চা চামচ, রসুন বাটা ১/৪ চা চামচ, ডিমের সাদা অংশ ১ টেবিল চামচ, কর্নফ্লাওয়ার ১ চা চামচ, পাপরিকা ১/৪ চা চামচ, তন্দুরি মসলা ১/৪ চা চামচ, চিলিসস ১ টেবিল চামচ, ধনিয়াপাতা ১ টেবিল চামচ, কাঁচামরিচ ১ চা চামচ, টকদই ১ টেবিল চামচ, সরিষার তেল ১ টেবিল চামচ, চিলি ফ্লেক্স ১ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো।

>> যেভাবে তৈরি করবেন: চিংড়ি মাছের সঙ্গে টকদই, লবণ, লেবুর রস, কালো গোলমরিচ, ব্রাউন সুগার, আদা বাটা, রসুন বাটা, ডিমের সাদা অংশ, কর্নফ্লাওয়ার, পাপরিকা, তন্দুরি মসলা দিয়ে ভালো করে মেখে মেরিনেট করে নিন। এবার প্যানে তেল গরম করে মেরিনেট করা চিংড়ি ভেজে লাল করে নিন। এবার ভাজা চিংড়িগুলো কেটে নিয়ে একটি বাটিতে ঢেলে কেটে রাখা মিক্সড সবজিগুলো দিয়ে একটু টস করে তার মধ্যে লবণ, কাঁচামরিচ, ধনিয়াপাতা, টকদই, সরিষার তেল, গোলমরিচ গুঁড়া, লেবু, চিলি ফ্লেক্স, চিলিসস দিয়ে মাখিয়ে নিন। মাখানো হয়ে গেলে উঠিয়ে পরিবেশন করুন তন্দুরি প্রন সালাদ।

*** ফলের সালাদ-

>> যা লাগবে: আপেল, আনারস, পেঁপে কিউব করে কাটা ১ কাপ, শসা, টোমেটো কিউব করে কাটা ১ কাপ, তরমুজ কিউব করে কাটা ১ কাপ, সবুজ, লাল আঙুর, চেরি ১ কাপ, কালো ও সবুজ অলিভ অল্প কিছু, লেবুর রস ২/৩ চা চামচ, লবণ পরিমাণমতো, চাটমসলা ১/২ চা চামচ, চিনি এক চিমটি, বিট লবণ সামান্য, পানি ঝরানো টকদই ১ টেবিল চামচ, কাঁচামরিচ কুচি ১ চা চামচ।

>> যেভাবে তৈরি করবেন: ফল কেটে লেবুর রস মিশিয়ে ১০ মিনিট রাখুন। বাকি সব উপকরণ মিশিয়ে নিন ভালো করে। এবার ভালো করে ফলে এটি মেখে নিন। এবার ফ্রিজে রাখুন ১০ মিনিট। তারপর ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করুন।

*** দই ফুচকা-

>> যা লাগবে: ফুসকার জন্য-সুজি ১ কাপ, ময়দা ১/২ কাপ, বেকিং সোডা ১/২ চা চামচ, তালমাখনা ১ ও ১/২ চা চামচ, লবণ ১/৪ চা চামচ, কুসুম গরম পানি ১/২ কাপ, ডুবো তেলে ভাজার জন্য। পুরের জন্য-আলু ৩ টি মাঝারি আকারের, কাঁচামরিচ কুচি ৫ টি, পেঁয়াজ কুচি ১ টি, ধনিয়াপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ, লবণ ১/২ চা চামচ। তেঁতুলের সসের জন্য-তেঁতুল ৫০ গ্রাম, ভাজা জিরার গুঁড়া ৩/৪ চা চামচ, ভাজা শুকনামরিচ গুঁড়া ১/৪ চা চামচ, লবণ ১ চা চামচ, বিট লবণ ১/৪ চা চামচ, চিনি ২ চা চামচ।

দই-এর মিশ্রণ-টকদই ১ কাপ, টালা শুকনামরিচ গুঁড়া ১/২ চা চামচ, টালা ভাজা জিরা গুঁড়া ১/২ চা চামচ, লবণস্বাদ মতো। সাজানোর জন্য-বেদানা/আনার দানা পরিমাণ মতো, ধনিয়াপাতা কুচি পরিমান মতো।

> যেভাবে তৈরি করবেন: একটি বাটিতে সুজি, ময়দা, লবণ, বেকিং সোডা ও তালমাখনা নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে মাখিয়ে শক্ত ডো তৈরি করুন। মাখানো হলে আধা ঘণ্টা ঢেকে রেখে দিন। আলু ভালো করে সিদ্ধ করে ছিলে আধা ভাঙা করে নিন। তাতে কাঁচামরিচ, লবণ, পেঁয়াজ, ধনিয়াপাতা কুচি দিয়ে মিশিয়ে রাখুন। তেঁতুল ১ কাপ পানিতে আধা ঘণ্টা মতো ভিজিয়ে রেখে তেঁতুলের কাথ বের করে নিন। তারপর তাতে সসের সব উপকরণ দিয়ে ভালোভাবে বিট করুন।

এবার মেখে রাখা ডো থেকে ৬টা বল বানিয়ে এক একটি বল থেকে রুটি বেলে গোল কিছু নিয়ে ছোট ছোট আকারে কেটে নিন। এভাবে সবগুলি রুটি থেকে ছোট রুটি কেটে নিন। গরম তেলে ফুসকাগুলো একটা একটা করে দিয়ে বাদামি করে ভেজে তুলুন। সব ভাজা হয়ে গেলে ঠান্ডা করে ফুসকার মাঝখানে ছিদ্র করে তাতে আলুর মেখে রাখা পুর দিয়ে টকদইয়ের মিশ্রণ তেঁতুলের সস ও আনার দানা ছড়িয়ে দিয়ে পরিবেশন করুন দারুন মজার দই ফুসকা।

*** পাপড়ি চাট-

>> যা লাগবে: খামির জন্য-সুজি ১ কাপ, ময়দা ১/২ কাপ, বেকিং সোডা ১/২ চা চামচ, লবণ ১/৪ চা চামচ, কুসুম গরম পানি ১/২ কাপ, তেল খামি মাখার জন্য ও ডুবো তেলে ভাজার জন্য।

ডাবলির মিশ্রণ-সেদ্ধ ডাবলি ১/২ কাপ (লবণ দিয়ে), আলু ৩টি মাঝারি আকারের, চাটমসলা ১ চা চামচ, টালা শুকনামরিচ গুঁড়া ১/২ চা চামচ, টালা জিরা গুঁড়া ১/২ চা চামচ, টালা ধনিয়া গুঁড়া ১/২ চা চামচ, কাঁচামরিচ কুচি ৫টি, পেঁয়াজ কুচি ১টি, ধনিয়াপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ, লবণ ১/২ চা চামচ, তেঁতুলের সসের জন্য-তেঁতুল ৫০ গ্রাম, ভাজা জিরা গুঁড়া ৩/৪ চা চামচ, ভাজা শুকনামরিচ গুঁড়া ১/৪ চা চামচ, লবণ ১ চা চামচ, বিট লবণ ১/৪ চা চামচ, চিনি ২ চা চামচ। দই-এর মিশ্রণ-টক দই ১ কাপ, টালা শুকনামরিচ গুঁড়া ১/২ চা চামচ, টালা ভাজা জিরা গুঁড়া ১/২ চা চামচ, লবণ স্বাদমতো। সাজানোর জন্য-বেদানা/আনার দানা পরিমাণমতো, ধনিয়াপাতা কুচি পরিমাণমতো, ঝুরিভাজা পরিমাণমতো, চানাচুর পরিমাণমতো, শসা-টমেটো কুচি পরিমাণমতো (ইচ্ছা)।

> যেভাবে তৈরি করবেন: একটি বাটিতে সুজি, ময়দা, লবণ, বেকিং সোডা ও তেল নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে মাখিয়ে শক্ত ডো তৈরি করুন। মাখানো হলে আধা ঘণ্টা ঢেকে রেখে দিন। আলু ভালো করে সিদ্ধ করে ছিলে আধা ভাঙা করে নিন। তাতে লবণ দিয়ে সেদ্ধ ডাবলি, চাটমসলা, কাঁচামরিচ, লবণ, পেঁয়াজ, টালা শুকনামরিচ গুঁড়া, টালা ধনিয়া-জিরা গুঁড়া, ধনিয়াপাতা কুচি দিয়ে মিশিয়ে রাখুন। তেঁতুল ১ কাপ পানিতে আধা ঘণ্টার মতো ভিজিয়ে রেখে তেঁতুলের কাথ বের করে নিন। তারপর তাতে সসের সব উপকরণ দিয়ে ভালোভাবে বিট করুন। এবার মেখে রাখা ডো থেকে ৬টি বল বানিয়ে এক একটি বল থেকে রুটি বেলে নিয়ে এর থেকে নিমকির আকারে কেটে নিন।

গরম তেলে নিমকিগুলো বাদামি করে ভেজে তুলুন। সব ভাজা হয়ে গেলে ঠান্ডা করে এর সঙ্গে ডাবলি-আলুর মেখে রাখা পুর দিয়ে তেঁতুলের সস, দইয়ের মিশ্রণ, ধনিয়াপাতা কুচি, শসা-টমেটো কুচি, ঝুড়ি-চানাচুর ভাজা ও আনার দানা ছড়িয়ে দিয়ে পরিবেশন করুন দারুণ মজার পাপড়ি চাট।

এম এইচ/ আই. কে. জে/

আরও পড়ুন:

সুস্বাদু পমফ্রেট মাছের তন্দুরি রেসিপি

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ