spot_img
26 C
Dhaka
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img

২রা অক্টোবর, ২০২২ইং, ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯বাংলা

বান্দরবানে পর্যটকদের নজর কেড়েছে ‘তমা তুঙ্গী’

- Advertisement -

নিজস্ব প্রতিবেদক, সুখবর বাংলা: অপরূপ সৌন্দর্যের লীলাভূমি বান্দরবান। এ জেলায় রয়েছে পর্যটকদের জন্য প্রাণজুড়ানো সব দর্শনীয় স্থান। বাংলাদেশের সবচেয়ে সুন্দর জায়গা হিসেবেও খ্যাত এ বান্দরবান জেলা। এবার এ জেলায় যুক্ত হয়েছে নতুন আরেকটি পর্যটনকেন্দ্র ‘তমা তুঙ্গী’। আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হওয়ার এক মাস না পেরোতেই তমা তুঙ্গীতে এখন পর্যটকের সরব উপস্থিতি। প্রাণচঞ্চলতায় ভরে উঠেছে এ মনোরোম এলাকা।

বান্দরবানে থানচিতে নতুন সড়কে চার কি.মি. নামক স্থানে তমা তুঙ্গী একটি পর্যটনকেন্দ্র গড়ে উঠেছে। নবীনতম পর্যটন তমা তুঙ্গী আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হতে না হতেই স্থানীয় কিংবা পর্যটকদের কাছে আকর্ষণের স্থানে পরিণত হয়েছে।

সূত্রে জানা যায়, সেনাবাহিনীর ৩৪ ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশন ব্রিগেডের (ইসিবি) উদ্যোগে উপজেলা সদর থেকে প্রায় চার কিলোমিটার দূরে তমা তুঙ্গী নামে পর্যটনকেন্দ্রটি গড়ে তোলা হয়। থানচি-রেমাক্রী-মদক-লিকক্রে নতুন সড়ক নির্মাণ প্রকল্পের কাজ করার সময় তমা তুঙ্গী পর্যটনকেন্দ্র গড়ে তোলেন সেনাবাহিনীর ইসিবি ব্রিগেড। কয়েক মাস আগে তমা তুঙ্গী পর্যটনকেন্দ্র গড়ে তোলা হলেও এটি ২০২১ সালের ৯ ডিসেম্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়।

এদিকে স্থানীয়রা জানান, যাতায়াতের সুবিধা থাকায় পর্যটকরা সহজেই তমা তুঙ্গীতে যেতে পারেন। তমা তুঙ্গী পর্যটনের নয়নাভিরাম দৃশ্য উপভোগ করতে থানচিতে ভ্রমণে আসা পর্যটকেরা ছুটে যান।

তারা আরও বলেন, থানচি সদরের সবচেয়ে নিকটতম তমা তুঙ্গী পর্যটকদের মন কেড়েছে। মনোরম পরিবেশে বিকেলে আড্ডার জন্যও এই পর্যটনকেন্দ্র উপযুক্ত স্থান। তমা তুঙ্গী থানচিতে অন্যতম প্রধান পর্যটনকেন্দ্র হিসেবে পরিচিতি পাবে বলেও মন্তব্য করেন।

সম্প্রতি সরেজমিনে দেখা গেছে, ট্যুরিস্ট ভিউ পয়েন্ট-১ ও ট্যুরিস্ট ভিউ পয়েন্ট-২ নামে পাশাপাশি দুটি স্থান রয়েছে তমা তুঙ্গীতে। এরই মধ্যে ট্যুরিস্ট ভিউ পয়েন্ট-১ এ গেলে সেখান থেকে দেশের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গের মধ্যে তাজিংডং, কেওক্রাডং ও ক্রাউডং (ডিম পাহাড়) অবলোকন করা যায়।

দিক নির্ণয়ের জন্য সেখানে তিনটি ভিউ পয়েন্ট নির্মাণ করা হয়েছে। পর্যটকরা সেখানে গেলেই এ তিনটি স্থান দেখার সুযোগ পায়। বসার কয়েকটি বেঞ্চ নির্মাণ করে দেয়ায় পর্যটকরা সেখানে বসে চারদিকের মনোরম পরিবেশের দৃশ্য দেখতে পারেন। রয়েছে ছোট্ট পরিসরে একটি পানির ফোয়ারা, ঘুরে বেড়ানোর বিশাল পরিসর।

অন্যদিকে ট্যুরিস্ট ভিউ পয়েন্ট-২ এ গেলে সিঁড়ি বেয়ে ওপরে ওঠার ব্যবস্থা রয়েছে। সেখানে বিশাল একটি বৃক্ষ ছায়া দিয়ে রেখেছে পুরো পর্যটন এলাকা। পর্যটকরা বেড়াতে গেলে সিঁড়ি বেয়ে ওপরে ওঠে অন্যরকম আনন্দ পাচ্ছে। পাহাড় আর প্রকৃতি দেখে মুগ্ধ হচ্ছে। তাই পর্যটনকেন্দ্রটি নতুন হলেও দিন দিন পর্যটকের সংখ্যা বাড়ছে।

এদিকে থানচির তমা তুঙ্গীতে ঘুরতে আসা কয়েকজন পর্যটক জানান, তমা তুঙ্গী পর্যটনকেন্দ্রটি দুটি ভাগে বিভক্ত করে গড়ে তোলায় চারপাশেই সবুজ পাহাড়ের সমারোহ। এখানে সবচেয়ে আকর্ষণীয় হলো তমা তুঙ্গী থেকে দেশের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ তজিংডং, কেওক্রাডং ও ক্রাউডং (ডিম পাহাড়) দেখার সুযোগ।

ঢাকা-চট্টগ্রাম বা দেশের যে কোনো স্থান থেকে বান্দরবানের (বান্দরবানের আলীকদম হয়েও) থানচি উপজেলায় যাবেন। এরপর জেলা সদর থেকে বাস, জিপ বা মাইক্রো ও মোটরসাইকেল ভাড়া নিয়ে থানচি সদরে যাওয়া যায়। জেলা থেকে সড়কপথে তিন ঘণ্টা পথ পাড়ি দিয়ে থানচি সদরে পৌঁছালে সেখান থেকে নতুন সড়কে চার কিমি নামক স্থানে গেলেই তমা তুঙ্গী পর্যটনকেন্দ্র।

আরো পড়ুন:

হ্রদ-পাহাড় আর ঝরনায় মেতেছেন পর্যটকরা

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ