spot_img
27 C
Dhaka

২৯শে নভেম্বর, ২০২২ইং, ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯বাংলা

ফরিদপুরে ভোটে অনিয়ম নেই, গাইবান্ধার সিদ্ধান্ত দিতে আরও ৭-১০ দিন : সিইসি

- Advertisement -

নিজস্ব প্রতিবেদক, সুখবর বাংলা: ফরিদপুর-২ আসনে উপনির্বাচনে কোনো ধরনের অনিয়ম না থাকায় ‘সন্তোষ’ প্রকাশ করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল। সেই সঙ্গে গাইবান্ধা অনিয়মের ‘এক তৃতীয়াংশ’ তদন্ত প্রতিবেদন পেলেও পুরো প্রতিবেদন নিয়ে সিদ্ধান্ত দিতে চান তিনি।

শনিবার (৫ নভেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে সিসি ক্যামরা পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন সিইসি।

সকাল আটটা থেকে ফরিদপুর-২ আসনের উপনির্বাচন চলছে। বিকাল ৪ টা পর্যন্ত ইভিএমে ভোট হবে। স্থানীয়ভাবে পর্যবেক্ষণের পাশাপাশি এ আসনের সব কেন্দ্র ও ভোটকক্ষ মিলিয়ে ১০৫২টি সিসি ক্যামেরায় ভোট দেখছেন সিইসি ও অন্য নির্বাচন কমিশনাররা।

দুপুরে সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়াল সাংবাদিকদের কাছে পরিবেশ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, ‘অনিয়ম একেবারেই দেখছি না। খুবই শান্তিপূর্ণভাবে ফরিদপুর উপনির্বাচন হচ্ছে।’ তবে ভোটার উপস্থিতি তুলনামূলক কম দেখা যাচ্ছে বলে জানান তিনি।

‘যেটা আমাদের প্রত্যাশা ছিল, সিসি ক্যামেরায় দেখলাম শান্তিপূর্ণ হচ্ছে।…সিসি ক্যামেরার একটা ইতিবাচক দিক রয়েছে। সিসি ক্যামেরায় ভোট করা নতুন একটি সংযোজন। যেটা নিয়ন্ত্রণ ও ইলেকটরাল গভার্নেন্সকে আরো বিস্তৃত করবে।’

এক প্রশ্নের জবাবে সিইসি জানান, তদন্ত প্রতিবেদন পুরো করে গাইবান্ধা উপনির্বাচনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে আরও ৭-১০ দিন সময় লাগবে।

তিনি জানান, ৫১টি কেন্দ্রের তদন্ত প্রতিবেদন তারা পেয়েছেন; বাকি ৯৪টি কেন্দ্রের তদন্ত প্রতিবেদনও এক সপ্তাহের মধ্যে করতে বলা হয়েছে আগের কমিটিকে।

‘তদন্ত প্রতিবেদন আমাদের হাতে এসেছে। কমিশন সভা নিয়ে ব্যস্ততা ছিল। শনিবার আজকে বসে আমরা রিপোর্টগুলো দেখেছি। প্রতিবেদনের বিষয়ে মন্তব্য করছি না।’

সিদ্ধান্ত হচ্ছে-বাকি ৯৪ টি ভোটকেন্দ্রের পরিস্থিতিও তদন্ত কমিটি পর্যবেক্ষণ করে প্রতিবেদন দেবে বলে উল্লেখ করে কাজী হাবিবুল আউয়াল।

সিইসি বলেন, ‘আমাদের তদন্ত কমিটি সিসি টিভি যে ফুটেজ রয়েছে তা দেখে একটা পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদন আমাদের কাছে দেবে; এ জন্য এক সপ্তাহ সময় দেওয়া হয়েছে। আগের কমিটি সাত দিনের মধ্যে রিপোর্ট দিলে টোটাল গাইবান্ধার উপরে সমন্বিত সিদ্ধান্ত নিতে পারবো।’

শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়ে সিইসি বলেন, ‘একটু অপেক্ষা করেন। ৭-১০ দিন সময় লাগবে। খণ্ডিত প্রতিবেদন পেয়েছি, পুরোটার তদন্ত প্রতিবেদন দরকার।’

এম/

আরো পড়ুন:

সাজেদা চৌধুরীর আসনে ভোটগ্রহণ চলছে

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ