spot_img
33 C
Dhaka
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img

৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ইং, ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯বাংলা

সর্বশেষ
***প্রকাশ্যে শাকিব-বুবলীর সন্তান, ঘোষণা আসতে পারে আজ***সৌদি প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ বিন সালমানকে শেখ হাসিনার আমন্ত্রণ***ত্রিদেশীয় সিরিজ ক্রিকেট: রাতে নিউজিল্যান্ড যাচ্ছে বাংলাদেশ  দল***পুতিনের ঘোষণায় ইউক্রেনের ৪ অঞ্চল রাশিয়ার হচ্ছে আজ***টিভিতে দেখুন আজকের খেলা***সৌদি শিক্ষার্থীদের আহ্বান, যোগব্যায়ামের সাথে সাফল্যের রাস্তা প্রসারিত হোক***অবসরে যাওয়া বেনজীর পাবেন সার্বক্ষণিক পুলিশের নিরাপত্তা***‘দুর্গাপূজা উদযাপনে সরকারের সহায়তা অব্যাহত থাকবে’***কেমন আছেন চীনের গ্রামীণ বয়স্ক বাসিন্দারা, মানবাধিকার কোথায়?***সীমান্ত দিয়ে কাউকেই প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রাণের পটাটা বিস্কুট এবার জনপ্রিয়তা পেল ভারতে

- Advertisement -

ডেস্ক রিপোর্ট, সুখবর ডটকম: বাংলাদেশি কোম্পানি প্রাণের বিস্কুট ‘পটাটা’ ভারতে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। অনেকেই বিস্কুটের প্যাকেটের ছবি দিয়ে টুইট করেন। অনেকেই বলেন, বিস্কুটটি লকডাউনের সময় খুঁজে পাওয়া মূল্যবান বস্তু। ভারতীয় ভোক্তাদের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে এ নিয়ে প্রতিবেদন করেছে দেশটির অনলাইন সংবাদমাধ্যম লাইভমিন্ট।
ভোক্তাদের ভাষ্য, বিস্কুটটি নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে হাইপ তৈরি হয়েছে, স্বাদে ও মানে বিস্কুটটি অক্ষরে অক্ষরে সে রকম। বিস্কুটে আলুর স্বাদ মেলে যথেষ্ট। অত্যন্ত পাতলা এই বিস্কুট বাস্তবে বিস্কুট ও চিপসের সমন্বয়। মিষ্টি-নোনতা-গন্ধ-মসলাযুক্ত এই বিস্কুটকে উপমহাদেশীয় স্বাদের আধার হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে এই প্রতিবেদনে।
প্যাকেটজাত কোনো খাদ্যসামগ্রী কেন এত জনপ্রিয় হয়। এ প্রসঙ্গে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কিছু কিছু জিনিস মানুষকে অতুলনীয় স্বাদ দেওয়ার পাশাপাশি স্মৃতিকাতর করে ফলে। যে ব্র্যান্ড এই কাজ করতে পারে, তারাই জনপ্রিয় হয়। প্রাণের এই বিস্কুট ঠিক এ কাজই করেছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।
ভারতে কোকা-কোলা, আমুল বাটার হলদিরামের আলু ভুজিয়া ইত্যাদি ব্র্যান্ডও এ কাজই করতে পেরেছিল।
প্রাণের পণ্য ভারতে অনেক দিন ধরেই বাজারজাত হচ্ছে। তবে সেটা ছিল মূলত ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও পশ্চিম বাংলায়। মূলত প্রাণের রাস্ক বিস্কুট, প্যাকেটজাত ঝালমুড়ি, ইনস্ট্যান্ট নুডলস ও জুস। পটাটাই প্রাণের প্রথম পণ্য, যা সর্বভারতীয় জনপ্রিয়তা পেয়েছে। পশ্চিমের জয়পুর থেকে শুরু করে দক্ষিণের ব্যাঙ্গালুরু পর্যন্ত—সব বাজারেই এখন পটাটা মেলে।
ভারতে এই বিস্কুটের জনপ্রিয়তা সম্পর্কে প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের বিপণন পরিচালক কামরুজ্জামান কামাল বলেন, এটি পণ্য হিসেবে অনন্য। এটি শুধু বিস্কুট নয়, আবার শুধু চিপসও নয়, এ দুটির সমন্বয়। সে জন্য এটি বিশেষ মনোযোগের দাবি রাখে। এ ছাড়া ভারতের মানুষের খাদ্যাভ্যাসের সঙ্গে মিল থাকায় এই বিস্কুট সহজেই ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে বলে তিনি মনে করেন।
কামরুজ্জামান কামাল আরও বলেন, প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ অনেক দিন ধরে ভারতে ব্যবসা করছে। ইতিমধ্যে সেখানে প্রাণের গ্রহণযোগ্যতা তৈরি হয়েছে। ফলে পরিচিত ব্যান্ডের নতুন পণ্য মানুষ সাদরে গ্রহণ করেছে। এই বিস্কুট বর্তমানে ভারতের ১৩–১৪টি রাজ্যে পাওয়া যাচ্ছে বলে তিনি জানান।

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ