spot_img
29 C
Dhaka
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img

৩রা অক্টোবর, ২০২২ইং, ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯বাংলা

প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে এসেছি, ডিগবাজি দিতে নয়: সিইসি

- Advertisement -

নিজস্ব প্রতিবেদক, সুখবর বাংলা: প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে এসেছি, ডিগবাজি দিতে নয়। রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে চলমান সংলাপে অংশ নিয়ে এ কথা বলেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল।

মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) সকালে সংলাপে অংশ নিয়ে নির্বাচনে সেনাবাহিনীর ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা রাখার দাবি জানিয়েছে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ। বিকল্পধারা বাংলাদেশ বলেছে- ভালো নির্বাচন অনেকটাই নির্ভর করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর ভূমিকার ওপর।

সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে ধারাবাহিকভাবে বৈঠক করছে ইসি। শুনছে রাজনৈতিক দলগুলোর মতামত। নিজেদের বক্তব্যও তুলে ধরছেন।

আজ ৮ম দিনে সংলাপে সকাল সাড়ে ১০টায় কমিশনে আসে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের নেতারা।

অন্যদিকে, ইসির পক্ষ থেকে ছিলেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার, চার নির্বাচন কমিশনার ও কমিশন সচিবসহ কমিশনের ঊর্ধ্বতন কর্তাব্যক্তিরা।

সূচনা বক্তব্য শেষে, দলটি কমিশনের কাছে দাবি করে নির্বাচনে সেনাবাহিনীকে ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা দিতে হবে। পাশাপাশি ইভিএম ব্যবহার না করারও সুপারিশ করেন তারা।

এরপর বেলা ১২টায় আসে বিকল্পধারা বাংলাদেশ। ইভিএম সম্পর্কে একই ধরনের মতামত দেয় বিকল্পধারাও। নেতারা বলেন, নির্বাচন কেমন হবে তা অনেকাংশে নির্ভর করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী কী ভূমিকা নিচ্ছে তার ওপর। তাই কমিশনকে সেই দায়িত্বও নিতে হবে।

দলগুলোর বক্তব্যের পর কথা বলেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার। তিনি বলেন, প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে এসেছি, ডিগবাজি দিতে না।

সিইসি বলেন, অনাস্থা আমাদের ওপর আপনাদের হয়তো আছে। আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, আমরা যে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি তার কিছুটা হলেও থাকা তো উচিত। একেবারে যে আমরা ডিগবাজি খেয়ে যাব, তা তো না! ২০১৮ সালে যে নির্বাচন হয়েছিল, ওভাবে এই নির্বাচন হবে সেটা আপনারা আশা করবেন না। আমরা সেটা জানি না, দেখিওনি।

সিইসি আরও বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের দায় আছে কমিশন, রাজনৈতিক দল এবং জনগণের ওপরও। তবে নির্বাচনকালে সরকার কমিশনকে সহায়তা করতে বাধ্য।

আমাদের ওপর আস্থা রাখেন। আস্থা রাখতে যেয়ে চোখ বন্ধ করে রাখলে হবে না। আপনাদের নজরদারি থাকতে হবে, আমরা কি আসলেই সাধু পুরুষ-না ভেতরে ভেতরে অসাধু। আপনারাও আপনাদের তরফ থেকে দায়িত্ব পালন করতে হবে। কঠোর নজরদারিতে আমাদেরও রাখতে হবে। অভিযোগ থাকলে পাঠান, আমাদের অনেক টেলিফোন থাকবে সে সময়। ক্যামেরায় অনেক সেন্টার আমরা ওয়াচ করতে পারব, বলেন হাবিবুল আউয়াল।

আরো পড়ুন:

পদ্মা সেতুতে ৩০ দিনে টোল আদায় ৭৬ কোটি টাকা

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ