spot_img
28 C
Dhaka
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img

২রা অক্টোবর, ২০২২ইং, ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯বাংলা

প্রকৃতিই যখন গতিরোধক

- Advertisement -

ডেস্ক প্রতিবেদন, সুখবর বাংলা: কেমন হয় যদি আপনার প্রতিদিনের চলাচলের রাস্তার দুই ধার রঙ – বেরঙের বুনোফুল, লতা-পাতা ভরা থাকে? কেটে যাবে না ক্লান্তি? রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে বা গতি কমিয়ে উপভোগ করতে ইচ্ছে করবেনা কিছুক্ষণ এই নয়নাভিরাম দৃশ্য? সম্প্রতি বৃটেনের একটি গ্রামের বাসিন্দারা তাদের গ্রামের পাশের হাইওয়েতে চালকদের গাড়ির গতি কমানোর জন্য অবলম্বন করেছে এই অভিনব পদ্ধতি।

বৃটেনের গ্লুচেস্টারশায়ারের লংনিউনটন গ্রাম থেকে কাছাকাছি শহরে যাওয়ার হাইওয়েতে দ্রুত যান চলাচলের সমস্যা রয়েছে। প্রায় সব চালকই, এলাকা দিয়ে যাতায়াতের সময় আইন অনুযায়ী বেঁধে দেয়া গতি সীমা অতিক্রম করে, এবং ট্রাফিক সিগনাল মানেনা। ভৌগলিক ভাবে টেটবারি ও মালমেসবারির মাঝে হওয়ার কারণে, এই গ্রাম দিয়ে প্রতিদিনই অনেক যানবাহন চলাচল করে থাকে। এই কারণে গ্রামটি এই দুই এলাকা থেকেই ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণের জন্য সীমিত কিছু আর্থিক সহায়তা সরকার থেকে পায়।

করোনা মহামারীর শুরুতে লকডাউন চলাকালীন সময়, যানবাহন চলাচল কম থাকায় এই দুই তহবিল এক করে গ্রামের কর্মকর্তারা রাস্তার ধারে ফুল গাছ রোপণ করেছিলেন। লকডাউন শেষে সব কিছু সচল হলে দেখা যায় ওই রাস্তা দিয়ে চলাচলের সময় যানবাহনের গতি বেশ কমে যায়। যদিও যানবাহনের এই ধীরগতির সঠিক কারণ এখনও জানাযায়নি, তবে আন্দাজ করা যায় যে চালকেরা যাতায়াতের সময় এই দৃশ্য উপভোগ করতে করতে যান যেই কারণে তাদের গাড়ির গতি কম থাকে।

এই ঘটনার পর ট্রাফিক আইন মজবুত করতে একটি ক্রাউড ফান্ডিং প্রচারাভিযান শুরু হয়, যেখান থেকে ৮হাজার ইউরো ফান্ড সংগ্রহ করা হয়। সংগৃহিত তহবিল দিয়ে আগামী তিন বছরের জন্য এই বুনোফুল প্রজেক্ট কর্মসূচি পালন করা হবে বলে জানা যায়। বিভিন্ন জরিপের মাধ্যমে বিপদজনক রাস্তাগুলো যেখানে বরাবরই ট্রাফিক আইন লঙ্ঘন এবং গতিসীমা অতিক্রম করা হয়, সেখানে এই কর্মসূচি পালন করা হবে বলে ধারণা করা যাচ্ছে।

আরো পড়ুন:

বেঙ্গালুরু: পৃথিবীর জনপ্রিয় ৭ সমুদ্র সৈকত পাবেন এক শহরেই

 

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ