spot_img
33 C
Dhaka
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img

৫ই অক্টোবর, ২০২২ইং, ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯বাংলা

পৃথিবীর বিস্ময় চীনের লাল সমুদ্র

- Advertisement -

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, সুখবর বাংলা: চীনের লিয়াওনিং প্রদেশের এই সমুদ্র সৈকতটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় ও সংরক্ষিত লাল প্রাকৃতিক জলাশয়। যেখানে বছরের একটা সময় পুরো সৈকত ঢাকা পরে লাল রঙে। দুর্লভ সামুদ্রিক ঘাস‘সুয়েদা সালসা’র কারণে লাল রঙে আবৃত থাকে পুরো সৈকত। দেখে মনে হয়  সমুদ্র সৈকত মানেই বালি আর বালি। সমুদ্রের যত দূরে তাকাবেন শুধু পানি আর পানি। আর পায়ের নিচে থাকবে বালি। এটাই তো নিয়ম, তাই না? কিন্তু প্রকৃতির বিস্ময় নিয়ে বসে আছে  পানজিন রেড বিচ। বিশ্বে লাল সমুদ্র সৈকত হিসেবেও এটি পরিচিত।

বেইজিং থেকে ৬ ঘণ্টার ট্রাভেল করলেই আপনি পৌঁছে যাবেন এই লাল সৈকতে।

চীনের উত্তরাঞ্চলের পানজিয়াংয়ের সমুদ্রসৈকতটির নাম রেড বিচ হলেও সেখানে আপনি লাল বালু দেখতে পাবেন না। বরং এক প্রকার সামুদ্রিক শৈবালের রাজত্ব গড়ে উঠেছে সেখানে। এপ্রিল-মে মাসে সবুজ থাকলেও সেপটম্বর থেকে উজ্জ্বল লাল বর্ণ ধারণ করে এসব শৈবাল। আর এই লাল উদ্ভিদের জন্য বিখ্যাত এই সমুদ্রসৈকতটি। সব সময় এই জলাভূমিতে কিন্তু লাল রঙের উপস্থিতি দেখবেন না। শুধু বছরের একটি সময়ই এই সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারেন পর্যটকরা। আর সেই সময়টি হলো সেপ্টেম্বর থেকে অক্টোবরের মাঝামাঝি। জাদুকরীভাবে এ সময় টকটকে লাল রঙে পরিণত হয় বৃহত্তম এই জলাভূমি। অন্য সময় সবুজ উদ্ভিদিই দেখা যায়। তবে ঠিক কোন উদ্ভিদ এবং কী কারণে এমন লাল বর্ণ ধারণ করে জলাভূমি? নিশ্চ্যই এমন প্রশ্ন ঘুরছে মাথায় ? এই প্রশ্নের উত্তর কিন্তু দিয়েছেন প্রকৃতিবিদরা। তারা বলেছেন, এই জায়গার অত্যধিক লবণাক্ততা এবং মাটির মধ্যে ক্ষারের পরিমাণের ব্যাপকতা রয়েছে। আর এই উদ্ভিদ উচ্চমাত্রার লবণাক্ততা শোষণ করতে পারে। সমুদ্রের নোনা পানির কারণেই এক সময় সবুজ রঙের এই সিপউইড উদ্ভিদ লাল রঙে পরিণত হয়। বসন্তে সিপউইড সবুজ হয়েই জন্মায়, তারপর গ্রীষ্ম থেকে এটি ধীরে ধীরে রং পরিবর্তন করে। অবশেষে শরতে অর্থাৎ সেপ্টেম্বর থেকে টকটকে লাল বর্ণ ধারণ করে।

দূর থেকে এই সৈকতটি দেখলে মনে হবে প্রকৃতি লাল গালিচা বিছিয়ে রেখেছে আপনার জন্য। আর এই সৌন্দর্যে মুগ্ধ হতেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে পর্যটকদের সমাগম ঘটে এই লাল রাজ্যে। সেখানকার সৌন্দর্য দেখতে প্রতি শরতে প্রচুর পর্যটক ভিড় করেন। সিএনএনর তথ্য অনুযায়ী, দুই মিলিয়নেরও বেশি পর্যটক প্রতিবছর পাড়ি জমান লাল সমুদ্রের কাছে। রেড বিচ ছাড়াও অঞ্চলটি ২৬০ প্রজাতির পাখি ও প্রায় ৪০০ প্রজাতির প্রাণীর আবাসস্থল। এমনকি এই জলাভূমি ধান ও বাঁশের জন্যও বিখ্যাত।

রেড বিচের আসল সৌন্দর্য দকেহতে চাইলে আপনাকে সেপ্টেম্বর থেকে অক্টোবরের মাঝামাঝি সময়েই যেতে হবে। এর আগে বা পরে গেলে সিপউইড ততটা লাল হবে না আর বেশি দেরি করে গেলে এই উদ্ভিদগুলো মরে যেতে পারে। তাই সময় মতো গেলেই কেবল দেখতে পাবেন লাল সৈকত। তবে সেই শৈবালের ওপর দিয়ে হাঁটার সুযোগ নেই পর্যটকদের। দীর্ঘ সেতু দিয়ে ঘুরে দেখা যায় সৈকতের আংশিক অঞ্চল। এ ছাড়া পর্যটকদের বিকেল ৫টার মধ্যেই সেখান থেকে বের হয়ে আসতে হবে।

তথ্য: এক্সপ্লোর ওয়য়েব।

আরও পড়ুন:

ইমরান খানের আগাম জামিনের মেয়াদ আবার বাড়ল

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ