spot_img
23 C
Dhaka

২৮শে জানুয়ারি, ২০২৩ইং, ১৪ই মাঘ, ১৪২৯বাংলা

পুরো মাসজুড়েই ফ্রি পিৎজার অফার!

- Advertisement -

ডেস্ক নিউজ, সুখবর ডটকম: এক মাস ধরে সবাইকে ফ্রি পিৎজা খাওয়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন স্কটল্যান্ডের রাজধানী এডিবরার একজন রেস্টুরেন্ট মালিক। মূলত মানুষের খারাপ অর্থনৈতিক পরিস্থিতির কারণে উদারতা বা দয়া হিসেবে এই কাজ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

সোমবার (২ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এক মাস ধরে সবাইকে একটি ফ্রি পিৎজা খাওয়ানোর ঘোষণা দেওয়া ওই ব্যক্তির নাম মার্ক উইলকিনসন। ৫৫ বছর বয়সী এই ব্যক্তি এডিনবরার দক্ষিণে অবস্থিত মর্নিংসাইড জেলার পিওর পিৎজা নামক রেস্টুরেন্টের মালিক।

মার্ক উইলকিনসন বলেছেন, জীবনযাত্রার ব্যয় সংকটের বিরুদ্ধে লড়াই করা লোকদের সাহায্য করার জন্য পরোপকারী এই কাজের পরিকল্পনা করছেন তিনি। তিনি বলেন, এই পরিকল্পনা তার খণ্ডকালীন কর্মীদের আরও কাজের সুযোগ দেবে।

৫৫ বছর বয়সী মার্ক উইলকিনসনের ভাষায়, ‘আমি আমার পরিকল্পনা নিয়ে খুব খুশি কারণ এটি সবার জন্যই লাভজনক। (আমার এই পরিকল্পনায়) গ্রাহকরা উপকৃত হবেন, সরবরাহকারীরা উপকৃত হবেন এবং আমার শেফদের দলও উপকৃত হবে কারণ এটি তাদের আরও কয়েক ঘণ্টা বাড়তি কাজের সুযোগ দেবে।’

তিনি বলছেন, ‘জীবনযাত্রার ব্যয় কীভাবে অনেক লোককে ক্ষতিগ্রস্ত করছে সে সম্পর্কে আমি নানা কথা শুনতে পাই। আর তাই আমি ভাবলাম, যেভাবেই হোক আমার ওভেনগুলো সারা দিন চলছে, আর তাই মানুষের যদি উপকার হয় তবে ওভেনগুলোকে সারা দিন তাদের পূর্ণ ক্ষমতায় চালানো হবে।’

মার্ক উইলকিনসন বলছেন, ‘পরার্থপরতা এমন কিছু যা আমাকে সত্যিই অনেক বেশি টানে এবং আমি এই ধরনের কাজ করার চেষ্টা করতে চেয়েছিলাম।’

মার্কের ধারণা, এক মাস ধরে সবাইকে ফ্রি পিৎজা খাওয়ানোর যে ঘোষণা তিনি দিয়েছেন তাতে তার প্রায় ১২ হাজার পাউন্ড খরচ হবে। ২০২০ সালের মার্চ মাসে লকডাউনের শুরুতে পিৎজার ব্যবসাটি শুরু করেছিলেন উইলকিনসন। তিনি বলছেন, তার ওভেনে প্রতি ছয় মিনিটে ১৮টি পিৎজা তৈরি করার ক্ষমতা রয়েছে।

বিবিসি বলছে, জানুয়ারি মাসে এডিনবরার মর্নিংসাইড ড্রাইভে তার দোকানে যাওয়া লোকেদের বিনামূল্যে পিৎজা দেওয়া হবে। যদিও সেগুলো বিকেল সাড়ে ৫টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা মধ্যে পাওয়া যাবে না।

মার্ক উইলকিনসন আশা করেন, যেসব মানুষ তার কাছ থেকে পিৎজা নেবেন তারাও তাদের নিজস্ব উপায়ে অন্যকে দয়া বা উপকার করার একটি কাজ করবেন।

অবশ্য পিওর পিৎজা থেকে ফ্রিতে পিৎজা নিতে হলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে কেবল একটি মোবাইল নাম্বার দিতে হবে।

মার্কের ভাষায়, ‘আমি আশা করি আমার পরিকল্পনাটি হাতের বাইরে চলে যাবে না। কিন্তু আমি কারও কাছে তাদের ঠিকানা চাইতে যাবো না, এমনকি পিৎজা নিতে হলে ঠিকানাসহ কাউন্সিল ট্যাক্স বিলও আনতে হবে না।’

এম এইচ/ আই. কে. জে/

আরও পড়ুন:

প্লেবয় ছিলেন, স্বীকার করলেন ইমরান খান

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ