Tuesday, June 15, 2021
Tuesday, June 15, 2021
danish
Home Latest News টিকা গ্রহণকারীদের ৯৬ ভাগের শরীরেই দ্রুত অ্যান্টিবডি তৈরি হচ্ছে : গবেষণা

টিকা গ্রহণকারীদের ৯৬ ভাগের শরীরেই দ্রুত অ্যান্টিবডি তৈরি হচ্ছে : গবেষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক, সুখবর ডটকম: “কোভিডের দুই ডোজ টিকা গ্রহণকারীদের ৯৬ ভাগের শরীরেই জীবাণুটির বিরুদ্ধে দ্রুত অ্যান্টিবডি তৈরি হচ্ছে বলে প্রমাণ মিলেছে। বাংলাদেশের একদল চিকিৎসকের গবেষণায় এমন তথ্য বের হয়েছে। এছাড়া করোনায় ভয়াবহভাবে আক্রান্ত হয়েছিলেন এবং পরে টিকা গ্রহণ করেছেন- অ্যান্টিবাডি তৈরি হওয়ার পর তাদের প্লাজমাই সবচেয়ে বেশি কার্যকর বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে গবেষণায়।”

“কোভিড ১৯ আক্রান্তদের মধ্যে প্রথমেই যাদের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো বা মাঝামাঝি তাদের শরীরে জীবাণুটি অপরিচিত হওয়ায় কোনো টিকা গ্রহণের পরও অ্যান্টিবডি তৈরির হার কম। তবে যাদের শরীরে কোভিডে কখনো না কখনো স্মৃতি রেখে গেছে তাদের শরীর জীবাণুর বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে মোটা দাগে।”

বাংলাদেশের গবেষকরা বলছেন, “২০ থেকে ৫০ বছর ও ষাটোর্ধ্ব এ দুই ক্যাটাগরির প্রথম ভাগের ক্ষেত্রে এটি সন্তোষজনক। প্রথম ডোজ টিকা গ্রহণ করার ২৮ দিন পর ও দ্বিতীয় ডোজের ১৪ দিন পর রক্ত পরীক্ষায় আলোকরশ্মির ঘনত্ব বা ওডি ভ্যালু ৬ পর্যন্ত পাওয়া যায়। অর্থাৎ ৯৬-৯৭ ভাগের ক্ষেত্রেই টিকা ফলপ্রসূ কাজ করছে। বাকি দুই থেকে তিন ভাগের ক্ষেত্রে অ্যান্টিবডি তৈরি হচ্ছে ধীরগতিতে।”

গবেষকরা বলছেন, “ভ্যাকসিন সংক্রমণ প্রতিরোধ করবে না তবে এটির কাজ শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি করা।”

ঢাকা মেডিকেলের মেডিসিন ও ইনফেকশন রোগ বিষেশজ্ঞ ডা. ফরহাদ উদ্দিন হাছান চৌধুরী মারুফ বলেন, “টিকা গ্রহণকারীদের শতকরা ১০০ জন ব্যক্তির সিভিয়ার কোভিড থেকে সুরক্ষা দিতে পারবে। ডোজ সম্পন্ন করার ২ সপ্তাহ পর কেউ যদি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েও থাকে সিভিয়ার পর্যায়ে যাবে না। কোভিডে আক্রান্ত হলেও তাকে হাসতালে ভর্তি হতে হবে না, অথবা আইসিইউ বা অক্সিজেন লাগবে না।”

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও সাজারি ইনস্টিটিউটের গবেষক ডা. মো. আশরাফুল হক বলেন, “টিকা নেওয়া শতভাগ মানুষদের অ্যান্টিবডি তৈরির প্রবণতা দেখা গেছে। যে চারজনের পাওয়া যায়নি তাদের ২ ডোজ দেয়ার পর অ্যান্টিবডি পাওয়া গেছে। তাদের আসলে এটি তৈরি হতে বেশি সময় লেগেছে। এটি আসলে তৃতীয়বার ডোজ দেয়ার ক্ষেত্রে কোন জনগোষ্ঠীকে আমাদের প্রাধান্য দেওয়া উচিত তা গবেষণা থেকে বের হয়ে আসবে।”

গবেষণার ফলাফল বলছে, “কোভিড আক্রান্তদের মধ্যে হাসপাতালমুখী প্রবণতা ও মৃত্যুহার কমাবে বলে মনে করেন গবেষকরা।”

তবে করোনার নতুন ভেরিয়েন্টের কারণে টিকা গ্রহণকারীরা আবারো করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন। তাই বিধিনিষেধ মানার পরামর্শ গবেষকদের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments