spot_img
28 C
Dhaka

৩১শে জানুয়ারি, ২০২৩ইং, ১৭ই মাঘ, ১৪২৯বাংলা

টিকটক যেন অল্পবয়সীদের ক্ষতির কারণ হতে না পারে

- Advertisement -

ডেস্ক রিপোর্ট, সুখবর ডটকম: টিকটক কম বয়সী ব্যবহারকারীদের উপর কেমন প্রভাব ফেলতে পারে তার উপর একটি গবেষণা থেকে জানা যায়, টিকটক অ্যাপ মুহূর্তের মধ্যে যেকোনও কিশোর-কিশোরীকে আত্মহত্যার জন্য প্ররোচিত করতে পারে।

গত বুধবার, সেন্টার ফর কাউন্টারিং ডিজিটাল হেইট নামক এক অলাভজনক প্রতিষ্ঠান জানায়, টিকটক একাউন্ট খুলার পর মুহূর্তের মধ্যেই আত্মহত্যা সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়বস্তু চোখের সামনে আসতে পারে। তাছাড়াও এই অ্যাপে খাওয়ার ব্যাধি সম্পর্কিত বিভিন্ন ভিডিও আছে যা থেকে খাওয়ার প্রতি মানসিক অসুস্থতা জন্মাতে পারে।

এ ব্যাপারে গবেষকেরা জানান, তারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও কানাডায়, অ্যাপের তথ্যে ১৩ বছর বয়স দিয়ে আটটি নতুন একাউন্ট খুলেছিলেন। তারা অবাক হয়ে দেখেন যে এ একাউন্টগুলোতে শারীরিক চিত্র এবং মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কিত ভিডিওগুলো বারবার চোখের সামনে আসছে। অ্যাপটি ৩০ মিনিটের মধ্যে প্রতি ৩৯ সেকেন্ড অন্তর অন্তর এ ধরনের ভিডিও দেখার জন্য সুপারিশ করছিল।

রাজ্য এবং ফেডারেল বিভাগের আইন প্রণেতারা গোপনীয়তা এবং নিরাপত্তার বিষয়ে টিকটক ব্যবহার নিয়ে উদ্বিগ্ন। সেইসাথে এ তথ্য জানার পর টিকটক কিশোর-কিশোরীদের জন্য উপযুক্ত কি না সে বিষয়েও সন্দিহান। উল্লেখ্য, এক বছরেরও বেশি সময় ধরে টিকটকসহ অনেকগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে অল্পবয়সী ব্যবহারকারী- বিশেষ করে কিশোরীদের মানসিক ও শারীরিক অসুস্থতার জন্য দায়ী বলে মনে করা হচ্ছে। এ নিয়ে এক বছর আগে কংগ্রেস তাদের প্রশ্নবিদ্ধ করে।

এসব কিছুর পর তখন তারা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তারা অল্প বয়সী ব্যবহারকারীদের ব্যাপারে সতর্ক থাকবে। কিন্তু এখন যখন এ তথ্য প্রকাশ্যে এসেছে, তখন সহজেই বুঝা যাচ্ছে তারা আদৌ কিছুই করেনি। কিছুই পরিবর্তিত হয়নি।

সিসিডিএইচ এর সিইও, ইমরান আহমেদ বলেন, এ বিষয়গুলো অভিভাবকদের জন্যেও উদ্বেগের কারণ। অল্প বয়সী ছেলেমেয়েরা ক্ষতিকারক ভিডিও দেখে চারপাশের পৃথিবী সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা তৈরি করবে। সেই সাথে এইসব তাদের শারীরিক-মানসিক স্বাস্থ্যের উপরেও প্রভাব ফেলবে।

টিকটকের একজন মুখপাত্র অবশ্য বলেন ৩০ মিনিটেই এত বড় মাধ্যমকে বিচার করা উচিত নয়। গবেষকদের একাউন্টগুলোতে ভিডিও খুঁজার প্রক্রিয়াতেও ভুল থাকতে পারে।

তিনি বলেন, “গবেষকদের এই অল্প সময়ের অভিজ্ঞতা এবং যারা এতদিন ধরে টিকটক ব্যবহার করে আসছে তাদের অভিজ্ঞতা সম্পূর্ণ ভিন্ন। আমরা নিয়মিত স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের সাথে আলোচনা করি। যেসব ভিডিও আমাদের নিয়ম লঙ্ঘন করে এবং যেকোনও ব্যবহারকারীর জন্য ক্ষতিকর, সেগুলো আমরা তৎক্ষণাৎ সরিয়ে ফেলি। আমরা অ্যাপটিকে সব ধরনের মানুষের ব্যবহার উপযোগী করার জন্য কাজ করে যাচ্ছি। অনেকেই আছেন যারা তাদের কোনও অসুখ থেকে সেরে উঠার সময়টা সম্পর্কে অন্যের সাথে আলোচনা করতে চান কিংবা সেসময়কার তাদের দুঃখগুলোকে ভাগ করতে চান, আবার অনেকেই আছেন যারা তাদের অসুখ সম্পর্কে অন্যদেরকে সতর্ক করতে চান, আমরা সে ভিডিওগুলোকে শিক্ষণীয় হিসেবেই গ্রহণ করি।”

তিনি অভিযোগ জানান যে সিসিডিএইচ আদৌ ইতিবাচক এবং নেতিবাচক ভিডিওগুলোর মধ্যে পার্থক্য করতে পারে না।

টিকটক জানায় এটি প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ভিডিওগুলোকে আলাদা করার ব্যবস্থা করে ব্যবহারকারীদের জন্য অ্যাপটিকে আরো নিরাপদ বানিয়েছে৷ জুলাই মাস থেকেই এটি প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ভিডিওগুলোকে আলাদা করতে শুরু করেছিল। এছাড়াও টিকটকে একজন কতটুকু সময় কাটাতে চায় কিংবা দিনে কতক্ষণ সে টিকটক ব্যবহার করেছে সে তথ্যও ব্যবহারকারীদেরকে প্রদান করা হয়। অভিভাবকীয় নিয়ন্ত্রণও করছে টিকটক।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম নিয়ে তদন্ত এই প্রথম নয়। ২০২১ সালের অক্টোবরে, ইউএস সেন রিচার্ড ব্লুমেন্থালের কর্মীরা ১৩ বছর বয়সী মেয়ে হিসেবে একটি ইন্সটাগ্রাম একাউন্ট খুলে কিছু ডায়েটিং এবং খাদ্যাভাস ব্যাধি সম্পর্কিত একাউন্ট অনুসরণ করা শুরু করে, এ একাউন্টগুলো পরবর্তীতে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়।

টিকটক জানায় এটি আত্মহত্যা সম্পর্কিত বা আত্মহত্যায় প্ররোচিত করতে পারে এমন ভিডিও তৎক্ষণাৎ সরিয়ে দেয়। এমনকি এই বছরের এপ্রিল থেকে জুন মাস পর্যন্ত এ জাতীয় ৯৩.৪% ভিডিও কেউ দেখার আগেই সরানো হয়েছে, ৯১.৫% ভিডিও পোস্ট করার ২৪ ঘন্টার ভেতর সরানো হয়েছে এবং ৯৭.১% ভিডিও কেউ রিপোর্ট করার আগেই সরানো হয়েছে।

তারপরেও সিসিডিএইচ টিকটককে তরুণ ব্যবহারকারীদের জন্য আরো সুরক্ষিত করতে আরো কিছু ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলেছে।

আই.কে.জে/

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ