spot_img
25 C
Dhaka

৩১শে জানুয়ারি, ২০২৩ইং, ১৭ই মাঘ, ১৪২৯বাংলা

ঠাণ্ডায় জমে গেছে নায়াগ্রা জলপ্রপাত, দেখতে পর্যটকদের ভিড়

- Advertisement -

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, সুখবর ডটকম: নায়াগ্রা জলপ্রপাতের অপরূপ দৃশ্য দেখতে ভিড় জমাচ্ছেন বিশ্ববাসী। এখন সেখানে গেলে জমে যাওয়া জলপ্রপাতের বিস্ময়কর রূপ দেখতে পাবেন। হঠাৎ ভয়ানক তুষারঝড়ে জমে গেছে নায়াগ্রা জলপ্রপাতের একাংশ। জমে যাওয়া নায়াগ্রার সেই ছবিই এখন সমাজমাধ্যমে ভাইরাল।

তাপমাত্রা হিমাঙ্কের অনেক নীচে নেমে যাওয়ায় নায়াগ্রা নদীর পানি জমতে শুরু করেছে। পানির উপর বরফের আস্তরণ পড়েছে। আর সেই বরফ নিয়েই নীচে আছড়ে পড়ছে নায়াগ্রা জলপ্রপাত।

নায়গ্রা ফলস নিউইয়র্ক স্টেট পার্কের ওয়েবসাইট অনুযায়ী, এই জলপ্রপাতে স্বাভাবিক অবস্থায় প্রতি সেকেন্ডে ৩২ ফুট বেগে ৩ হাজার ১৬০ টন পানি প্রবাহিত হয়।

১৯৬৪ সালের আগে বরফের কারণে নায়াগ্রার পানির গতি বাধাপ্রাপ্ত হত। কারণ নদীর উৎসই ঠান্ডায় জমে যেত। নদীর পানির গতি সচল রাখতে স্টিল আইস-বুম লাগানো হয়। যা বরফের চাঁই জলের উপর জমতে দেয় না।

নায়াগ্রা জলপ্রপাতকে দেখলে মনে হবে, হঠাৎ যেন সেটি পুরোপুরি থমকে গেছে। তবে আদৌ তা নয়। জলপ্রপ্রাতের উপরিভাগ জমে গেলেও কিন্তু পানির স্রোত বয়ে চলেছে। এমন তথ্যেই জানিয়েছে নায়াগ্রা পার্কের ওয়েবসাইট।

এই পরিস্থিতিতে নায়াগ্রায় সৌন্দর্য দেখতে সেখানে ভিড় জমাচ্ছেন অনেক পর্যটক। বর্তমানে বোম্ব সাইক্লোনে বিপর্যস্ত পুরো আমেরিকা। তাপমাত্রা হিমাঙ্কের ৪৮ ডিগ্রি নীচে নেমে যাওয়ায় পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হয়ে উঠেছে।

তুষারঝড়ের প্রকোপে বিদ্যুৎহীন লাখ লাখ পরিবার। এরই মধ্যে প্রাকৃতিক দুর্যোগে মারা গেছেন ৬২ জন। সব মিলিয়ে এখন জনজীবন বিপর্যস্ত।

নিউইয়র্কের পরিস্থিতি যে ভয়াবহ, নায়াগ্রা জলপ্রপাতেই সেই দৃশ্য ধরা পড়েছে। এই প্রাকৃতিক দুর্যোগকে ‘শতাব্দীর ভয়ংকর তুষারঝড়’ বলে দাবি করছেন কেউ কেউ।

টানা ৫-৬ দিন প্রবল তুষারঝড়ে বিপর্যস্ত আমেরিকার নানা প্রান্তে এখন পুরু বরফের স্তর। কোথাও কোথাও বরফের উচ্চতা হয়েছে ৮-১০ ফুট।

এম/ আই. কে. জে/

আরো পড়ুন:

এখন যেমন জীবনসঙ্গী চান রাহুল গান্ধী

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ