spot_img
20 C
Dhaka

২৯শে জানুয়ারি, ২০২৩ইং, ১৫ই মাঘ, ১৪২৯বাংলা

চীনা টিকটক ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

- Advertisement -

ডেস্ক রিপোর্ট, সুখবর ডটকম: জাতীয় নিরাপত্তার হুমকি হিসেবে চীনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিষেধাজ্ঞার পর টিকটক ব্যবহারেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে পারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেস এবং এর আইনপ্রণেতারা।

সিনেটের অনুমোদন পাওয়ার পর, হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস, ২০২৩ সালের সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত ১.৭ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার পর্যন্ত বিল পরিশোধ করে ফেডারেল সরকারকে। এই প্যাকেজে একটি আইন অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এ আইন অনুযায়ী ফেডারেল সরকারের ডিভাইসে টিকটক ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

সম্প্রতি তথ্য পাওয়া যায়, টিকটকের চাইনিজ কোম্পানি বাইটডান্স দুই সাংবাদিকসহ বেশ কিছু ব্যবহারকারীর গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করে। এই তথ্য প্রকাশের পর কংগ্রেস হয়তো টিকটক ব্যবহারের উপর আরো বেশি নিষেধাজ্ঞা প্রয়োগ করতে পারে।

চলতি মাসের শুরুর দিকে সেন. মার্কো রুবিও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে টিকটক ব্যবহার সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ করার জন্য একটি বিল উত্থাপন করেন। তিনি জানান, টিকটকের মূল কোম্পানি বাইটডান্স, বেইজিং এর হয়ে গুপ্তচরবৃত্তিতে লিপ্ত এবং এই অ্যাপ লক্ষ লক্ষ আমেরিকানদের তথ্য পাচার করছে।

রুবিও জানান, এখনই উপযুক্ত সময় চীনা টিকটক অ্যাপ নিষিদ্ধ করার।

বাইটড্যান্সেরই তদন্তে জানা যায়, তার চারজন কর্মচারী দুইজন সাংবাদিক এবং তাদের সাথে যুক্ত অল্প কিছু মানুষদের আইপি ঠিকানা এবং অন্যান্য তথ্য চুরি করেছে। এই চার কর্মচারীর দুইজন চীনে কর্মরত এবং বাকি দুইজন যুক্তরাষ্ট্রে কর্মরত।

ব্যবহারকারীদের তথ্য চুরি, অবস্থান খোঁজা, অন্যান্য অ্যাপের ব্রাউজিং তথ্য সংগ্রহ ইত্যাদি কাজের জন্য পূর্বেই টিকটক সমালোচিত হয়েছিল। এফবিআই এর পরিচালক ক্রিস্টোফার ওয়ে কংগ্রেসকে জানান গুপ্তচরবৃত্তির উদ্দেশ্যে টিকটকে ব্যক্তিগত প্রোফাইলগুলো ব্যবহার করে বেইজিং।

বাইটড্যান্স চীনা কমিউনিস্ট পার্টির আদেশের অধীন হওয়ার কারণে জাতীয় নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা এটিকে হুমকি হিসেবেই দেখছে। সিনেট বুদ্ধিমত্তা কমিটির চেয়ারম্যান, সেন মার্ক ওয়ার্নারসহ ডেমোক্র্যাটরাও চীনের ব্যাপক নজরদারির জন্য এই অ্যাপটি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

আগামী বছর কংগ্রেসের টিকটকের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের আশংকা নিয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন টিকটকের মুখপাত্র, ব্রুকার ওবারওয়েটার। তবে তিনি সরকারি ডিভাইসে অ্যাপ নিষিদ্ধ করার জন্য সমালোচনা করেন।

নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা টিকটকের উপর ভরসা রাখতে পারছেন না। তাদের মতে, বেইজিং কর্তৃপক্ষের হাতের ইশারায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের তথ্য চুরি করা হচ্ছে।

ইউটাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এবং ইউজার প্রাইভেসি বিশেষজ্ঞ, সমীর পাটিল জানান, ক্রিয়াকলাপ নিয়ন্ত্রণ করা যায় এমন অ্যাপের প্রতি আইন প্রণেতাদের সতর্ক থাকা উচিত।

বেইজিং যে বিষয়গুলো পছন্দ করেনা সেগুলো টিকটকে দেখানোও হয় না, এ বিষয়টি অনেকেই অনেক বছর ধরে জানেন। তিব্বতের স্বাধীনতা, ফালুন গং এবং চীনের কমিউনিস্ট পার্টি সম্পর্কিত সব সমালোচনা টিকটক থেকে বাদ দেওয়া হয়।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তথ্য পাচার হবে না এ যুক্তি বাস্তবায়ন করলে হয়তো চীনের এই টিকটকের ব্যবহার সচল থাকতে পারে যুক্তরাষ্ট্রে। তবে প্রযুক্তিগত বাস্তবায়নের পাশাপাশি ব্যবসায়িক দৃষ্টিকোণ থেকেও সবকিছু বিবেচনা করতে হবে। যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা রক্ষার জন্য এর উচিত দেশভিত্তিক একটি পৃথক কোম্পানি তৈরি করা যা চীনের সাথে কোনওভাবেই সম্পৃক্ত থাকবে না।

আই.কে.জে/

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ