spot_img
26 C
Dhaka

৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ইং, ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯বাংলা

সর্বশেষ

কেমন আছেন চীনের গ্রামীণ বয়স্ক বাসিন্দারা, মানবাধিকার কোথায়?

- Advertisement -

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, সুখবর বাংলা: চীনের বিস্তীর্ণ গ্রামাঞ্চলে বয়স্ক গ্রামীণ বাসিন্দাদের পরিস্থিতি অন্যরকম। প্রতিনিয়ত নাগরিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হওয়ার পাশাপাশি মানবেতর জীবনযাপন করছেন তারা।

বিশ্বের বৃহত্তম বয়স্ক জনসংখ্যার সাথে, চীন একটি বড় জনতাত্ত্বিক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছে। গ্রামাঞ্চলে তরুণদের তুলনামূলক অভাবের কারণে এ সমস্যাটি এখানে আরও প্রকট; শহরে ১৭.৭ শতাংশের তুলনায় ৬০ বছরের বেশি বয়সীদের অনুপাত ২৩.৮ শতাংশ।

এখানে বেশিরভাগ বয়স্ক গ্রামীণ বাসিন্দাদের বয়স ৭০ এর দশকের মতন। তাদের মেয়েদের বিয়ে হলে অন্য গ্রামে চলে যায় এবং ছেলেরা শহরে চলে যায় কাজের সন্ধানে।

চাইনিজ একাডেমি অফ সোশ্যাল সায়েন্সের একটি প্রতিবেদনে গ্রামীণ চীনে বার্ধক্যজনিত সমস্যার তীব্রতা তুলে ধরা হয়। গ্রামীণ জনসংখ্যার ৬০ বছর বা তার বেশি বয়সীরাই কেবল ২০ শতাংশের বেশি। তবে ৬৫ বছর বা তার বেশি বয়সের অনুপাত ১৬.৫৭ শতাংশে পৌঁছেছে, যা ‘‘বয়স্ক সমাজ’’ স্তরকে ছাড়িয়ে গেছে।

প্রতিবেদনটি গ্রামীণ চীনে মানব পুঁজি নিয়েও উদ্বেগের উত্থাপন করে, এবং উল্লেখ করে যে সামগ্রিক শিক্ষার স্তর এখানে কম। তবে এটি গ্রামীণ বাসিন্দাদের অপর্যাপ্ত চিকিৎসা ও যত্ন নিয়ে কিছু বলে নি।

সবচেয়ে বড় প্রশ্ন হলো: চীনের দারিদ্র্যতার মধ্যে কে এসব লোকেদের দেখাশোনা করবে? ঐতিহ্যগতভাবে, চীনারা আশা করে যে তাদের সন্তানরা বৃদ্ধ বয়সে তাদের যত্ন নেবে। কিন্তু আজকাল, বেশিরভাগ কর্মক্ষম গ্রামবাসী কাজের সন্ধানে শহরাঞ্চলে চলে যায়।

অধিকন্তু, তাদের শহুরে ভাইবোনদের মতন, গ্রামীণ বয়স্করা কর্মক্ষেত্রে পেনশন পান না।

এ সমস্যা সম্পর্কে ভালভাবে অবগত হয়ে, সরকার ২০০৯ সালে নতুন গ্রামীণ পেনশন স্কিম প্রবর্তন করে। এটি মৌলিক সরকারী পেনশনকে একত্রিত করে, এবং এতে অংশগ্রহণকারীরা যখন ৬০ বছর বয়সে পৌঁছায় তখন তারা ন্যূনতম ১৫ বছরের জন্য বার্ষিক হিসেবে পেনশন পায়। স্বেচ্ছায় বেশিরভাগ গ্রামীণ নাগরিক এই প্রকল্পের আওতায় রয়েছে।

কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত, বেশ কয়েকটি গবেষণায় পাওয়া গেছে যে পেনশন পরিকল্পনাটি ভালভাবে কাজ করছে না। ২০২১ সালে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন, যা উত্তর-পূর্ব চীনের গানসু প্রদেশের উপর আলোকপাত করে। সেখান থেকে দেখা যায় যে স্কিমের সুবিধাগুলি অংশগ্রহণকারীদের মৌলিক চাহিদা মেটানোর জন্য পরিমাণে খুবই কম।

হিসাবটি জটিল। ধরা যাক একজন কৃষক ১০০ ইউয়ান (১৪ মার্কিন ডলার) – সর্বনিম্ন এবং সবচেয়ে সাধারণ বিকল্প – ১৫ বছরের জন্য প্রতি বছর এই স্কিমটিতে প্রদান করে৷ সেই একই সময়ের মধ্যে, সরকার প্রতি মাসে ৫৫ ইউয়ান মৌলিক হারে সুদ দেয়। স্থানীয় সরকার তখন একটি ভর্তুকি যোগ করে যা এক স্থান থেকে অন্য জায়গায় যদিও পরিবর্তিত, তবুও সাধারণত সর্বনিম্ন ৩৩ ইউয়ান হয়।

অবসর গ্রহণের পর, পেনশন প্রাপ্তির গড় সংখ্যা ১৩৯ মাস। এর অর্থ হলো কৃষকের মাসিক পেনশন হবে ৮৫ ইউয়ান। এই টাকায় কেউ বাড়ি জমি নিয়েও বসবাস করতে পারবে না।

গ্রামাঞ্চলে চীনের নিম্ন সামাজিক নিরাপত্তা গ্রামীণ উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করছে। সাম্প্রতিক বছরগুলিতে, বিভিন্ন প্রতিনিধি এবং বিশেষজ্ঞরা গ্রামীণ পেনশন প্রকল্পের সংস্কারের জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।

কেউ কেউ তরুণ পেনশনভোগীদের বয়স্কদের যত্ন নিতে বা তাদের বাড়ি বা জমির দেখাশোনা করার পরামর্শ দিয়েছেন। অধিকাংশই বেসিক পেনশন বাড়ানোর জন্য কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। অন্যরা পেনশন স্কিম বাতিল করার এবং এর পরিবর্তে একটি নন-কন্ট্রিবিউটরি পেনশন চালু করার আহ্বান জানিয়েছেন, যা অনেকটা চীনের শহুরে নাগরিকরা যেমন কয়েক দশক ধরে উপভোগ করছে তার মতোই।

কিন্তু স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির স্কট রোজেল, যিনি গ্রামীণ উন্নয়নের একজন বিশেষজ্ঞ এবং অদৃশ্য চীন-এর সহ-লেখক তিনি এমনটা করা সম্ভব হবে বলে মনে করেন না।

তিনি জানিয়েছেন, ‘‘অর্থনীতি যখন স্থবির হয়ে যাচ্ছে তখন এটা সম্ভব হবে না বরং খুব ব্যয়বহুল হবে।’’

তিনি আরো বলেন, গ্রামীণ প্রবীণদের জন্য সরকার যে গড় পেনশন প্রদান করে তা শহুরে প্রবীণদের দেওয়া পরিমাণের থেকে ১০ শতাংশেরও কম। বর্তমানে, কৃষকরা প্রাথমিকভাবে আর্থিক সহায়তার জন্য তাদের সন্তানদের উপর নির্ভর করে, কিন্তু এটি ধীরে ধীরে একটি মন্থর অর্থনীতিতে এবং কম সন্তানের সাথে সমস্যার কারণ হয়ে উঠবে। তাই শহুরে-গ্রামীণ ব্যবধান কমাতে সরকারকে এখনই পদক্ষেপ নিতে হবে।

তিনি বলেন, সরকারকে অবশ্যই সামাজিক নিরাপত্তার জন্য, বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলে তার ব্যয় যথেষ্ট পরিমাণে বাড়াতে হবে। ২০২১ সালে, পাবলিক পেনশনে চীনের ব্যয় ছিল তার মোট দেশীয় উৎপাদনের ৫.৩ শতাংশ – যা বিশ্বের গড় ৯-১০ শতাংশের তুলনায় কম যেখানে গ্রীস এবং ইতালিতে, পাবলিক পেনশনের ব্যয় ১৫-১৬ শতাংশ।

শুধুমাত্র গ্রামীণ পেনশনের পরিমাণ বৃদ্ধির মাধ্যমেই শহুরে ও গ্রামীণ সম্পদের ব্যবধান সংকুচিত হবে এবং স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করা যাবে।

কেকে/ওআ

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ