spot_img
32 C
Dhaka
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img

৫ই অক্টোবর, ২০২২ইং, ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯বাংলা

কেন বাংলাদেশের ত্রাণ সহায়তা প্রত্যাখ্যান করল পাকিস্তান?

- Advertisement -

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, সুখবর বাংলা: ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পাকিস্তান। নজিরবিহীন এ দুর্যোগে দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৫০০ জনে। দেশটির এক তৃতীয়াংশ এলাকা এখনও বন্যার পানির নিচে আছে।

সরকারি তথ্য অনুযায়ী, বন্যায় ইতোমধ্যে আশ্রয়,সহায়-সম্বল হারিয়ে খোলা আকাশের নিচে দিন-রাত কাটাচ্ছেন লাখ লাখ মানুষ। পাকিস্তানের ৩ কোটি ৩০ লাখেরও বেশি মনুষ এই বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন এবং বন্যায় ইতোমধ্যে কয়েক শ’ কোটি ডলারের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ।

এই পরিস্থিতিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো বাংলাদেশও বন্যার্তদের জন্য ত্রাণ সহায়তা পাঠানোর প্রস্তাব দিয়েছিল পাকিস্তানের সরকারকে। বাংলাদেশের ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গত ১২ ডিসেম্বর সরকারের পক্ষ থেকে পাকিস্তানকে ত্রাণ সামগ্রী প্রদানের প্রস্তাব দেওয়া হয়।

এসব সামগ্রীর মধ্যে ছিল ১০ টন বিস্কুট, ১০ টন ড্রাই কেক, ১০ হাজার পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট, ৫০ হাজার প্যাকেট ওরাল স্যালাইন, ৫ হাজার মশারি, ২ হাজার কম্বল ও ২ হাজার তাঁবু।

তবে ত্রাণ নেওয়া সম্ভব নয় বলে আমিরাতভিত্তিক ইংরেজী দৈনিক নেশনকে জানিয়েছেন পাকিস্তানের একজন জেষ্ঠ্য রাজনীতিবিদ।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তান থেকে তৎকালীন পূর্বপাকিস্তানের আলাদা হয়ে যাওয়া ও বাংলাদেশের উদ্ভব এবং মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দানকারী দল আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময়ে জাতিসংঘসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামে পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে গণহত্যার অভিযোগ তোলার কারণেই এই ত্রাণ নেওয়া সম্ভব নয়।

গত মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) দ্য নেশনকে তিনি বলেন, ‘আমরা কীভাবে তাদের ত্রাণ সহায়তা নিতে পারি, বলুন? জাতিসংঘসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামে তারা কি বলে বেড়ায় তা কি আপনারা জানেন না? তারা আমাদের গালাগালি করে এবং দাবি করে—১৯৭১ সালে আমাদের পরাজিত করেছিল।’

দ্য নেশনকে ওই রাজনীতিবিদ আরো বলেন, ‘আন্তর্জাতিক ফোরামে যেভাবে তারা (বাংলাদেশ) আমাদেরকে, আমাদের সেনাবাহিনীর উদ্দেশে নেতিবাচক মন্তব্য করে, তাতে এখন তাদের থেকে ত্রাণ নিলে আমাদের মান-সম্মান বলতে আর কিছু অবশিষ্ট থাকে না। পাকিস্তানের ভৌগলিক অখণ্ডতা আমাদের কাছে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’

ওআ/

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ