Sunday, May 9, 2021
Sunday, May 9, 2021
danish
Home Latest News করোনা ঠেকাতে আরো এক সপ্তাহ বাড়ছে লকডাউন : ঈদের আগে শিথিলের ভাবনা

করোনা ঠেকাতে আরো এক সপ্তাহ বাড়ছে লকডাউন : ঈদের আগে শিথিলের ভাবনা

নিজস্ব প্রতিবেদক, সুখবর ডটকম: সর্বাত্মক লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সোমবার (১৯ এপ্রিল) দুপুরে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সচিবদের সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়। সরকারের উচ্চ পর্যায়ের অনুমোদন মিললে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

এর আগে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানান, বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে সরকার সারাদেশে আরও এক সপ্তাহ সর্বাত্মক লকডাউন বাড়ানোর চিন্তা ভাবনা করছে। তিনি আরও বলেন, “জীবন ও জীবিকার প্রয়োজনে সরকার ঈদের আগে লকডাউন শিথিলেরও চিন্তাভাবনা করছে।”

সোমবার (১৯ এপ্রিল) দুপুরে নিজ বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্স যুক্ত হয়ে এই কথা জানান তিনি।

সারাদেশে গত ১৪ এপ্রিল শুরু হওয়া এই  সর্বাত্মক লকডাউন শেষ হওয়ার কথা ছিল ২১ এপ্রিল। তার আগেই রোববার (১৮ এপ্রিল) এক ভার্চুয়াল বৈঠকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে আরও এক সপ্তাহের জন্য ‘কঠোর লকডাউন’ আরোপের সুপারিশ করে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি। প্রস্তাবিত এই লকডাউন শেষ হওয়ার আগে সংক্রমণের হার বিবেচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়ারও পরামর্শ দেয় এই কমিটি।

কমিটির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বৈজ্ঞানিকভাবে দুই সপ্তাহের কম লকডাউনে কার্যকর ফলাফল আশা করা যায় না। এজন্য জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি কমপক্ষে দুই সপ্তাহের জন্য পূর্ণ লকডাউন সুপারিশ করেছিল। সরকার ১৪ এপ্রিল থেকে এক সপ্তাহের লক ডাউন ঘোষণা করায় কমিটি সন্তোষ প্রকাশ করেছে।

লকডাউনের সময় স্বাস্থ্যসেবা, ফায়ার সার্ভিস ও অন্যান্য জরুরি সেবা ছাড়া সবকিছু বন্ধ রাখার পরামর্শ দিয়েছে কমিটি। খোলা রাখা যাবে এমন জরুরি সেবার তালিকা প্রকাশ করারও অনুরোধ জানানো হয়েছে। তা না হলে বিরূপ পরিস্থিতির আশংকা রয়েছে উল্লেখ করে সম্প্রতি চিকিৎসকসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের চলাচলে বাধা ও অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার বিষয় সভায় তুলে ধরা হয়। কাঁচা বাজার আবারও উন্মুক্ত স্থানে বসানোরও প্রস্তাব দেয় জাতীয় কমিটি।

ওই বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, “দেশের অর্থনীতি সচল রাখার স্বার্থে শিল্প-কলকারখানা খোলা রাখার বিষয়টি কমিটি উপলব্ধি করে। তবে, বেসরকারী দপ্তর, ব্যাংক খোলা রাখা, ক্রমবর্ধমানভাবে ব্যক্তিগত গাড়ী চলাচল, ইফতার বাজারে অনাকাঙ্ক্ষিত ও অপ্রয়োজনীয় অতিরিক্ত ভিড় লকডাউনের সাফল্যকে অনিশ্চিত করে।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments