spot_img
32 C
Dhaka
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img

৬ই অক্টোবর, ২০২২ইং, ২১শে আশ্বিন, ১৪২৯বাংলা

আমরা বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়নও হতে পারি: খালেদ মাহমুদ সুজন

- Advertisement -

নিজস্ব প্রতিবেদক, সুখবর বাংলা: কুড়ি ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স যাচ্ছে তাই। সাম্প্রতিক সময়ে এই ফরম্যাটে সাফল্য নেই বললেই চলে। এশিয়া কাপে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিতে হয়েছে। আগামী অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় হতে যাওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে আরেকবার হতাশা গ্রাস করেছে দলে। এই অবস্থায় দাঁড়িয়েও বাংলাদেশের বিশ্বকাপে জেতার সম্ভাবনার দেখছেন টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন!

‘আমাদের লক্ষ্য, টি-টোয়েন্টিতে উন্নতি করছি কিনা। ছেলেদের মাথায় এই ফরম্যাটটা ছড়িয়ে দিতে চাই। এই ফরম্যাটের কারণে অনেকে আমাদের তাচ্ছিল্য করে। আমাদের মধ্যে আত্মবিশ্বাস আছে ভালো করার। আমি নিজে পজিটিভ মানুষ, তাই পজিটিভ থাকার চেষ্টা করি সবসময়। আমি মনে করি, আমরা বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়নও হতে পারি। যদিও সে রাস্তাটা মোটেও সহজ হবে না। হয়তো ৬ মাস কিংবা এক বছর সময় লাগবে।’

বুধবার (৭ সেপ্টেম্বর)  মিরপুরে সাংবাদমাধ্যমকে কথাগুলো বলেছেন সুজন।

চলতি এশিয়া কাপের আগে টি-টোয়েন্টিতে নতুন শুরুর পরিকল্পনা ছিল বাংলাদেশের। কিন্তু সেটি হয়নি। সামনেই নিউজিল্যান্ডের মাটিতে পাকিস্তানকে নিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলেবে বাংলাদেশ। মূলত ওখান থেকেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূল প্রস্তুতি নেবে বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডের ব্যাটারদের কাছ থেকে ভয়ডরহীন ক্রিকেট দেখতে চাইছেন সুজন, ‘আমি চাই ব্যাটাররা সাহস নিয়ে খেলুক। এই ফরম্যাটের জন্য স্বাধীনতা নিয়ে আগ্রাসী ক্রিকেটটাই খেলতে চাই আমরা। আর এমনভাবে খেলার সময় প্রথম বলে আউট হতেই পারে ব্যাটার। যদিও সেটার কোনও সমস্যা দেখছি না আমি। নিউজিল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে এক-দুইটা ম্যাচ না-ও জিততে পারি আমরা।’

সুজন আরও বলেছেন, ‘এটা করতে গিয়ে হয়তো নিউজিল্যান্ড ট্যুর ও বিশ্বকাপে এক-দুইটা ম্যাচেও জিততে পারবো না। তারপরও আমাদের মানসিকতা যদি বদলায়, সেটাতে আমি খুব খুশি হবো।’

ইনজুরির কারণে মাঠের বাইরে লিটন দাস, নুরুল হাসান সোহান, ইয়াসির আলী ও হাসান মাহমুদ এশিয়া কাপের দল থেকে ছিটকে গিয়েছিলেন তারা। সুজন আশা করছেন সবাই ফিরলে দল আরও শক্তিশালী হয়ে উঠবে।

তার বক্তব্য, ‘লিটন-সোহান তো আমাদের অনেক গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। এশিয়া কাপে ওদের ইনজুরি আমাদের অনেক ভুগিয়েছে। অবশ্যই ফিটনেসের ছাড়পত্র পেলেই ওরা কামব্যাক করবে। ওদের ফর্ম নিয়ে কোনও চিন্তা নেই। সোহানও দারুণভাবে শেষ করেছিল জিম্বাবুয়েতে, লিটনও দারুণ ফর্মে রয়েছে, হাসান মাহমুদকেও আমরা মিস করেছি। আশা করি, হাসানও তাড়াতাড়ি ফিট হয়ে যাবে, দলে ফিরবে। ওরা সবাই ফিরলে দল আরও শক্তিশালী হবে বিশ্বাস করি।

আরো পড়ুন:

মালদ্বীপকে উড়িয়ে সবার আগে সেমিফাইনালে বাংলাদেশ

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ