spot_img
31 C
Dhaka
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img

২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ইং, ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯বাংলা

সর্বশেষ
***হাওয়া সিনেমার পরিচালকের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার***কোনো দলকে সমর্থন নয়, বাংলাদেশে সুষ্ঠু নির্বাচন চায় যুক্তরাষ্ট্র: পিটার হাস***আলট্রা-লাইট হাউইটজার ছাড়া গত পাঁচ বছরে সমস্ত বন্দুক নিজারাই তৈরি করছে ভারত***বিশ্ব হার্ট দিবস আজ***জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়: স্নাতক ভর্তির সর্বশেষ রিলিজ স্লিপের মেধাতালিকা প্রকাশ ২ অক্টোবর***হেপাটোলজি এ্যালামনাই এসোসিয়েশনের উদ্যোগে লিভার ট্রানপ্লান্টেশন বিষয়ক আন্তর্জাতিক সেমিনার অনুষ্ঠিত***নাগরিকদের রাশিয়া ছাড়তে বলল মস্কোর মার্কিন দূতাবাস***‘সোনার তরী’র আজকের শিল্পী ইশরাত জাহান***নভেম্বরের শেষ সপ্তাহে জাপান যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী***‘বাঁশরী’তে আজ গাইবেন পূরবী বিশ্বাস এবং মালিহা তাসফিয়া রোদেলা

সালমান শাহ’র স্টাইল আজও তরুণরা অনুকরণ করে

- Advertisement -

বিনোদন ডেস্কসুখবর বাংলা: অমর নায়ক সালমান শাহ স্বল্পদৈর্ঘ্য ক্যারিয়ার এখনো পূর্ণদৈর্ঘ্য হয়ে আছে রুপালি ভুবনে। কোটি কোটি তরুণ তরুণীর হৃদয় জয় করা স্টাইলিশ আইকন নায়ক সালমান শাহ। তার মত এত অল্প সময়ে এত বেশি জনপ্রিয়তা বাংলাদেশের ফিল্ম ইতিহাসের কোন সেলিব্রেটি পাইনি। তার এক একটি সিনেমা মুক্তি ছিল এক একটি উৎসব এর মত। তার জনপ্রিয়তা একমাত্র নব্বশ দশকের ছেলে মেয়েদেরই দেখার সৌভাগ্য হয়েছিল।

সালমান শাহ এর আসল নাম (জন্ম সূত্রে) শাহরিয়ার চৌধুরী ইমন। তিনি চলচ্চিত্রে আসার পর তার নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় সালমান শাহ। কোটি ছেলে মেয়েদের স্বপ্নের পুরুষ সালমান শাহ’র জন্ম তার নানার বাড়ি দাড়িয়া পাড়া গ্রাম সিলেটে ১৯ সেপ্টেম্বর ১৯৭১ সালে। বাবা কমর উদ্দিন চৌধুরী ও মা নীলা চৌধুরীর সবচেয়ে বড় ছেলে ছিলেন নায়ক সালমান শাহ।

সালমান শাহ’র শিক্ষাজীবনের শুরুটা হয় খুলনাতে। বয়রা মডেল হাইস্কুল নামক খুলনার একটি স্কুলে তার পড়াশোনার হাতেখড়ি হয়। বয়রা মডেল হাইস্কুলে সেই সময় পড়াশোনা করতেন বর্তমান বাংলা চলচ্চিত্রের প্রিয়দর্শীনি খ্যাত চিত্রনায়িকা মৌসুমীও। সালমান ও মৌসুমী একই প্রতিষ্ঠানের পড়ার কারণে তার খুব ভাল বন্ধু ছিল। ভাগ্যক্রমে তাদের দুজনের চলচ্চিত্রে একই সাথে অভিষেক হয়।

সালমান এস এস সি পাশ করেন ধানমন্ডির আরব মিশন স্কুল থেকে ১৯৮৭ সালে। তিনি ইন্টারমিডিয়েট বর্তমান এইচ এস সি পাশ করেন আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজ থেকে। ইন্টারমিডিয়েট পাশ করার পর তিনি থেমে থাকেন নি। পরবর্তিতে সালমান উচ্চ শিক্ষার জন্য ভর্তি হন মালেকা সায়েন্স কলেজ যেটি বর্তমানে ডক্টর মালেকা বিশ্ববিদ্যালয় নামে পরিচিত। সেখান থেকে তিনি ই বি. কম. পাস করেন। তারপর তিনি অভিনয়ে জড়িয়ে পড়েন।

সালমান শাহ অভিনয়ের শুরুটা হয়েছিল নাটকের মাধ্যমে ১৯৮৫ সালে। তিনি সেই সময় আকাশ ছোয়া নাটক বাংলাদেশ টেলিভিশন বা বিটিভির জন্য করেন। প্রথম নাটকেই তিনি অসাধারণ অভিনয় করেন। তিনি শুধু একক নাটকেই অভিনয় করেন নি ধারাবাহিক নাটকে ও অভিনয় করেছেন। সালমান শাহ’র  অভিনীত নাটক আকাশ ছোয়া মুক্তি পায় ১৯৮৫ সালে, নাটক সৈকত সারস মুক্তি পায় ১৯৮৮ সালে,নাটক পাথর সময় মুক্তি পায় ১৯৯০ সালে, নাটক ইতিকথা মুকি পায় ১৯৯৪ সালে,নাটক দোয়েল মুক্তি পায় ১৯৯৪ সালে সহ আরো অনেক নাটক যা দর্শক হৃদয়ে স্থায়ী আসন করে নেয়।

অন্যদিকে সালমান শাহর চলচ্চিত্র ক্যারিয়ার অভিষেক হয় ভারতের বিখ্যাত কেয়ামত সে কেয়ামত সিনেমার রিমেক কেয়ামত থেকে কেয়ামত সিনেয়ার মাধ্যমে। পরিচালক সোহানুর রহমান সোহান সিনেমাটি পরিচালনা করেন। সেই ছবির মাধ্যমেই শাহরিয়ার চৌধুরী ইমন নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় সালমান শাহ।

সালমান ও মৌসুমী দুজনেরই অভিষেক সিনেমা ছিল কেয়ামত থেকে কেয়ামত। তার প্রথম ছবিটি সুপার ডুপার হিট হয় বক্স অফিসে। পরে সালমান নায়িকা মৌসুমীর সাথে জুটি বেধে পর পর কয়েকটি সিনেমায় কাজ করেন। তারা পর পর তিনটি ব্যবসাসফল সিনেমা স্নেহ, দেনমোহর ও অন্তরে অন্তরে উপহার দেয় দর্শকদের। পরে সালমান ও শাবনূর জুটি হিসেবে প্রথম কাজ করেন তুমি আমার সিনেমার মাধ্যমে।

এই জুটি একে একে উপহার দিতে থাকে অনেক ব্যবসাসফল সিনেমা। স্বপ্নের নায়ক, সুজন সখি, আনন্দ অশ্রু, স্বপ্নের পৃথিবী, চাওয়া থেকে পাওয়া মত অসংখ সুপার ডুপার হিট সিনেমা উপহার দিতে থাকে সালমান শাবনূর জুটি। সালমান অভিনীত ২৭ টি সিনেমার মধ্যে নায়িকা শাবনূরের সাথে কাজ করেছেন ১৪ টি সিনেমাতে। তাছাড়া তিনি আরো অভিনয় করেছেন নায়িকা শাবনাজ, নায়িকা, সোনিয়া, নায়িকা কাঞ্চি, নায়িকা শাহনাজ, নায়িকা শিল্পী, নায়িকা লিমাসহ আরও অনেক নায়িকার সাথে।

সালমান শাহ’র  ১৯৯৫ সালে নয়ন নাটকের জন্য বাচসাস পুরস্কাত লাভ করেন। ইয়ুথ এন্ড সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট নামক একটি বেসরকারি সংস্থা তাকে শ্রেষ্ঠ নায়ক হিসেবে পুরস্কীত করেন।

সালমান শাহ বিয়ে করেন ১৯৯২ সালের ১২ আগস্ট। বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক শফিকুল হক হিরার মেয়ে সামিরা হক কে। তাদের বিয়েটি ভালবাসার বিয়ে হলেও তাদের দুজনের পরিবারের সম্মতিতে বিয়ে হয়েছে। সালমান সামিরা দম্পতির কোন ছেলে মেয়ে নেই।

নব্বই দশকে যেখানে নায়করা সাধামাঠা সিমসাম পোশাক পড়ত। সেখানে সালমান নিয়ে আসে স্টাইলিশ সব পোশাকের সমাহার। তাছাড়া লাইফস্টাইল ছিল অন্য সব নায়কদের থেকে সম্পন্ন আলাদা। তিনি চুলে বাহারি ধরনের ব্যান্ডেনা ব্যবহার করতেন। তার ব্যবহার করা বাহারি ধরনের টুপি তার ভক্তরা তাকে কপি করে পড়ত। তিনি সেসব স্টাইলিশ জিনিসপত্র ব্যবহার করত তখনকার অভিনেতারা তা চিন্তা ও করতে পারত না।

তার কলারে রুমাল, ডান হাতে ঘড়ি, ব্যাক ব্রাশ হেয়ার, টি শার্ট কিংবা জিন্স ব্যবহার তখনকার তরুণদের মাঝে তিনি ক্রেজ হিসেবে আবির্ভাব হয়েছিলেন। শুধু নব্বই দশকের তরুণ তরুণী নয় বর্তমান সময়ের তরুণ তরুণীদেরকে ও সালমানকে অনুকরণ করতে দেখা যায়। এমনকি বর্তমান নায়করা ও তাকে অনুসরণ করে থাকে। সালমানের দুরন্ত অভিনয় আর স্টাইলের কারণে তাকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছিল।

আজ এই চির সবুজ নায়ক সালমান শাহ এর জন্মদিনে ‘সুখবর বাংলা’ অনেক অনেক শ্রদ্ধা নিবেদন আর আত্মার চির শান্তি কামনা করছে ।

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় সালমানকে পাওয়া যায় তার নিজ বাসায়। তার মৃত্যু নিয়ে রহস্য আছে অনেক কিন্তু সঠিকভাবে কেও কিছু বলতে পারে না , যদিও পুলিশ সবর্শষ ২০২০ সালে জানান যে সালমান আত্নহত্যাই করেছিল।

এসি/

আরো পড়ুন:

কেবিসি ১৪ সিজনের প্রথম কোটিপতি গৃহবধূ কবিতা চাওলা

 

 

 

 

- Advertisement -

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলো করুন

25,028FansLike
5,000FollowersFollow
12,132SubscribersSubscribe
- Advertisement -

সর্বশেষ